ইসরায়েলি কমান্ডোরা ফিলিস্তিনি ছদ্মবেশে

ডেস্ক রিপোর্ট : ফিলিস্তিনের পতাকা মাথায় বেঁধে বিক্ষোভকারীর ছদ্মবেশ নিয়ে ইসরায়েলি কমান্ডোরা আন্দোলনরত ফিলিস্তিনিদের ভিড়ে ঢুকে ধর-পাকড়ের মাধ্যমে বিক্ষোভ দমনের কৌশল নিয়েছে।

ফিলিস্তিনি অধ্যুষিত রামাল্লা শহরের নিকটবর্তী ইহুদি বসতি বেইত আল’র কাছে গত বুধবার ইসরায়েলি কমান্ডোরা অনুপ্রবেশের মাধ্যমে বিক্ষোভ দমনের এই ঘটনার ছবি তুলতে গিয়ে ইসরায়েলি সেনাদের রোষের মুখে পড়েন বার্তা সংস্থা রয়টার্সের আলোকচিত্রী মোহামদ তোরোকমান।

দুই দশক ধরে এই এলাকার সংঘর্ষের খবর সংগ্রহে নিয়োজিত তোরোকমান এই অবস্থাকে ‘ভয়ানক’ হিসেবে বর্ণনা করেছেন।

পরে এই আলোকচিত্র সাংবাদিক বলেন, “তারা আগ্নেয়াস্ত্র উঁচিয়ে আমাকে নিশানা করায় চরম ঝুঁকি তৈরি হয়েছিল।”

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প গত সপ্তাহের বুধবার জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী হিসেবে স্বীকৃতি দেওয়ার পর থেকেই বিক্ষোভ করে চলছে ফিলিস্তিনিরা।

এদিনও বিক্ষোভে জড়ো হয়েছিলেন কয়েকশ ফিলিস্তিনি। ইসরায়েলি সেনাদের দিকে পাথর ছুড়ে ও টায়ারে অগ্নিসংযোগ বিক্ষোভ করতে থাকেন তারা।

এই সমাবেশের মধ্যেই বিক্ষোভকারীর ছদ্মবেশে ধরে থাকা ইসরায়েলি কমান্ডোরা হঠাৎ অস্ত্র উঁচিয়ে গুলি ছুড়তে শুরু করে।

তোরোমান বলেন, ‘ছদ্মবেশী সৈন্যরা ফিলিস্তিনি বিক্ষোভকারীদের চেহার নিয়ে পাথর নিক্ষেপকারীদের পেছনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।

হঠাৎ তারা পিস্তল দিয়ে ফাঁকা গুলিবর্ষণ শুরু করেন, একই সময় ব্যবহার করা হয় সাউন্ড গ্রেনেড।’ গ্রেনেডের শব্দ ও আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহারে বিক্ষোভকারীদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ছদ্মবেশধারী আটজন ইসরায়েলি সৈন্যকে দেখতে পান তোরোকমান। সূত্র : বিডি নিউজ ২৪