কত রোহিঙ্গা হত্যা এক মাসে

ডেস্ক রিপোর্ট : রাখাইন রাজ্যে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর সাম্প্রতিক নিধনযজ্ঞ শুরুর পর থেকে ৬ হাজার ৭০০ রোহিঙ্গাকে হত্যা করা হয়েছে। অভিযানের মুখে সীমান্ত পেরিয়ে বাংলাদেশে আসা রোহিঙ্গা শরণার্থীদের সঙ্গে কথা বলে এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন মেডিসিনস সানস ফ্রন্টিয়ার্স (এমএসএফ)। তবে এর আগে কয়েকটি সংস্থা এ সংখ্যা ৯ হাজার হতে পারে বলে জানিয়েছিল। হামলায় ঠিক কত জন রোহিঙ্গা নিহত হয়েছেন তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। প্রকৃত সংখ্যা অনেক বেশি বলে ধারণা করা হচ্ছে।

খবর বিবিসি ও সিএনএন। খবরে বলা হয়, ২৫ আগস্টের পর মিয়ানমার সেনাবাহিনীর বর্বরোচিত অভিযানে ৪০০ জনের প্রাণহানির দাবি করেছে দেশটি। তবে এমএসএফ বলছে, এই সংখ্যা আরও অনেক বেশি। মানবাধিকার সংগঠনটির বক্তব্য, এটা মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ব্যাপক সহিংসতার স্পষ্ট নিদের্শন। মিয়ানমারের দাবি, সন্ত্রাসীদের ওপর এই সহিংস অভিযান চালানো হয়েছে। এজন্য তারা কোনো অন্যায় কাজ করেনি বলেও দাবি করছে।

এমএসএফ বলছে, আগস্টের শেষদিকে ওই সহিংসতার পর ৬ লাখ ৪৭ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আশ্রয় নিয়েছে। দাতা গ্রুপের জরিপে, ২৫ আগস্ট থেকে ২৪ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত মিয়ানমারে ৯ হাজার রোহিঙ্গার মৃত্যুর খবর পেয়েছে। তবে চূড়ান্ত পর্যালোচনায় দেখা গেছে ৬ হাজার ৭০০ জন রোহিঙ্গা সহিংসতায় মারা গেছে, যাদের মধ্যে ৭৩০ জন শিশু।

এমএসএফ বলছে, সহিংসতায় নিহতের মধ্যে ৬৯ ভাগ রোহিঙ্গাকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। ৯ ভাগ রোহিঙ্গাকে বাড়িতে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে এবং বাকি ৫ ভাগ রোহিঙ্গাকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। আর ৫ বছরের নিচের শিশুদের মধ্যে ৫৯ ভাগকে গুলি করে, ১৫ ভাগকে পুড়িয়ে, ৭ ভাগকে পিটিয়ে এবং ২ ভাগ শিশুকে ল্যান্ডমাইনের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। বাংলাদেশ প্রতিদিন