শীতে ঝলমলে চুল

ডেস্ক রিপোর্ট : চুলের মসৃণভাব ধরে রাখতে শীতের শুরু থেকেই চাই বিশেষ পরিচর্যা। নয়ত এই মৌসুমের শুষ্ক প্রকৃতি চুলকেও করে তুলবে রুক্ষ।

শীতে চুল ঝলমলে রাখতে পরামর্শ দিয়েছেন শিবানী’জ অ্যারোমার কর্নধার শিবানি দে।

* চুলে ব্যবহারের পণ্য সতর্কতার সঙ্গে নির্বাচন করুন। চুল ধুতে শ্যাম্পু ব্যবহারের পর ডিপ কন্ডিশনার ব্যবহার করুন যাতে অতিরিক্ত ঠাণ্ডা বা শীতের কারণে চুল পড়ে না যায়।

* শীতে অনেকের চুল পড়তে দেখা যায়। এই চুল পড়া রোধে তেল ও ক্যাস্টর অয়েল একসঙ্গে হালকা গরম করে নিন। ঠাণ্ডা হয়ে গেলে তাতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল ভেঙে মিশিয়ে চুলে লাগান।

* শীতের দিনগুলিতে সবচেয়ে বেশি উপকারে আসে ‘হট অয়েলের ম্যাসাজ’ মানে তেল কুসুম গরম করে মালিশ করা। নারিকেল, জলপাই, বাদাম বা যেকোনো চুলে লাগানোর তেল হালকা গরম করে চুলের গোড়ায় মালিশ করে লাগান। ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন।

* শীতের শুষ্কতায় মাথার ত্বকও আর্দ্রতা হারায়। ফলে কম বেশি সবাই এই সময়ে খুশকির সমস্যায় ভোগেন। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আধা কাপ অলিভ অয়েল হালকা গরম করে সঙ্গে এক ফালি লেবুর রস মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান। ৪৫ মিনিট রেখে হালকা কোনো শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে তিন থেকে চারবার এভাবে চুলের যত্ন নিন।

* শীতে বেশিরভাগ মানুষের চুল রুক্ষ আর শুষ্ক হয়ে যায়। এই সমস্যা সমাধানে ১ কাপ পালংশাক, ১ চা-চামচ মধু এবং ১ চা-চামচ অলিভ অয়েল বা নারিকেল তেল নিয়ে ব্লেন্ডারে ভালো মতো ব্লেন্ড করুন। এরপর এই মিশ্রণটি চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলে মসৃণভাব আসবে আর হবে প্রাণবন্ত।

* এই সময়ে গোসলের পর চুল শুকাতে অনেক সময় লেগে যায়, আবার ভেজা চুল নিয়ে বাইরে যাওয়া একটা ঝামেলা। তাই গোসলের পর তোয়ালের সাহায্যে সবটুকু পানি মুছে হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে মাঝে মাঝে চুল শুকাতে পারেন। হেয়ার ড্রায়ার সবসময় কম তাপমাত্রায় ব্যবহার করুন।

* শীতকালে চুল রুক্ষ হয়ে ফেটে যাওয়া খুবই সাধারণ সমস্যা। তাই চুলে কোনো রকমের ফেটে যাওয়ার সমস্যা দেখা দিলেই দেরি না করে চুল ছেঁটে নিন।

সূত্র : বিডিনিউজ