ডিপথেরিয়ায় আক্রান্ত ৪২৪ রোহিঙ্গা শিশু, মৃত্যু ৯

জান্নাতুল ফেরদৌসী: কয়েক দশক আগে বাংলাদেশ থেকে নির্মূল হওয়া ডিপথেরিয়া রোগে আক্রান্ত হয়েছে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে এসে এদেশে আশ্রয় নেয়া ৪২৪ জনের বেশি রোহিঙ্গা শিশু, এদের মধ্যে মৃত্যু হয়েছে ৯ শিশুর। সংক্রামক এই ব্যাধি থেকে রক্ষা পেতে আগে থেকেই প্রতিশোধক নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। সূত্র: একাত্তর টিভি

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ছড়িয়ে পড়ছে বিভিন্ন রোগ। আক্রান্তদের মধ্যে শিশুদের সংখ্যা বেশি। বেশির ভাগ শরীরে বাসা বেধেছে ডিপথেরিয়ার জীবাণু।

শিশুদের অভিভাবকরা বলছেন, টানা কয়েকদিন ধরে প্রবল জ্বরে ভোগছে শিশুরা। সেই সাথে কাঁশি, ক্লান্তি ও ঠা-া, গলা ব্যথাসহ শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথায় ভোগছে তারা।

ভ্রাম্যমাণ এসব ক্যাম্পের চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, শিশুদের পাশাপাশি বয়স্ক নারী-পুরুষরাও আক্রান্ত হচ্ছে এসব রোগে।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন বলছেন, দশকের পর দশক ধরে মৌলিক স্বাস্থ্য সেবা থেকে বঞ্চিত ছিলেন রোহিঙ্গারা। সে কারণে ডিপথেরিয়াসহ নানা সংক্রামক রোগে আক্রান্ত হয়েছেন তারা।

কক্সবাজার সিভিল সার্জন আব্দুস সালাম, আমরা টিকার মাধ্যমে এসব রোগগুলো নির্মূল করতে চেষ্টা করছি। মিয়ানমার থেকে চলে আসা রোহিঙ্গাদের সংক্রামক রোগের টিকা দেয়া ছিল না। দুই সপ্তাহে ৪২৪ জন রোহিঙ্গার শরীরে ডিপথেরিয়ার জীবাণু সনাক্ত করা হয়েছে আর প্রতিদিনই এর সংখ্যা বাড়ছে। এটা একটা খুবই ছোঁয়াছে রোগ। এটা খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। স্থানীয়দের মধ্য এসব রোগের টিকা দেয়া আছে তাই এরোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংখ্যার সহযোগিতায় ৯ ডিসেম্বর থেকে উখিয়ার ৪৮টি ও টেকনাফের ১২টি ভ্রাম্যমাণ ক্যাম্প থেকে রোহিঙ্গাদের ডিপথেরিয়া রোগের প্রতিশোধক টিকা দেয়া শুরু হয়েছে। ক্যাম্পের কাছাকাছি এলাকার স্থানীয় শিশুদেরও টিকা দেয়া শুরু হবে।