প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বক্তব্য : পাকিস্তানের প্রতিবাদ

আশিস গুপ্ত, নয়াদিল্লি : গুজরাট নির্বাচনে জয়লাভের জন্য সাম্প্রদায়িক সুড়সুড়ি দেবার অভিযোগ উঠলো খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে। বিজেপিকে হারিয়ে কংগ্রেসের আহমেদ পটেলকে মুখ্যমন্ত্রী করতে হস্তক্ষেপ করছে পাকিস্তান। হবার এমনই অভিযোগ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

কংগ্রেসের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর এই বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা রাহুল গান্ধী বলেন, মিথ্যার ফুলঝুরি না উড়িয়ে গুজরাটের কথা বলুন প্রধানমন্ত্রী। আর এবার প্রধানমন্ত্রীর সেই দাবির বিরোধিতা এল ইসলামাবাদ থেকে। পাক বিদেশ মন্ত্রকের বার্তা, ভারত যেন তাদের নির্বাচন প্রক্রিয়া থেকে ইসলামাবাদকে দূরে রাখে। পাকিস্তানের হস্তক্ষেপের কথা বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী হাতিয়ার করেছিলেন কংগ্রেস নেতা মনিশঙ্কর আইয়ারের বাড়িতে গোপন বৈঠক প্রসঙ্গ।
মোদীর দাবি ছিল, মনিশঙ্করের বাড়িতে প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ, প্রাক্তন উপ-রাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি ‘গোপন’ বৈঠকে বসেছিলেন পাক রাষ্ট্রদূত ও সে দেশের প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী খুরশিদ কাসুরির সঙ্গে।পাক সামরিক গোয়েন্দা বাহিনীতে কাজ করেছেন, এমন ব্যক্তি পটেলকে গুজরাতের মুখ্যমন্ত্রী করতে চান। সেই লক্ষ্যেই ওই গোপন বৈঠক। অভিযোগ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী। সেই প্রসঙ্গেই এ দিন পাক বিদেশ মন্ত্রকের জবাব, ‘এই দাবির কোনও ভিত্তি নেই। এটি সম্পূর্ণ দায়িত্বজ্ঞানহীন মন্তব্য। ভারতের নির্বাচনী বিতর্কে পাকিস্তানকে টানা অবিলম্বে বন্ধ করা উচিত ভারতের।’পাশাপাশি, আইয়ারের বাড়িতে বৈঠক প্রসঙ্গে প্রাক্তন সেনাপ্রধান দীপক কপূরের এক মন্তব্য বিতর্কে নয়া মাত্রা যোগ করল। গত ৬ ডিসেম্বরের সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কপূর। এ দিন প্রাক্তন সেনাপ্রধান ‘দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস’-কে জানিয়েছেন, আইয়ারের বাড়িতে বৈঠক হয়েছিল ঠিকই। কিন্তু, সেখানে ভারত-পাকিস্তান দু’দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক নিয়ে আলোচনা হয়। গুজরাত বা অন্য কোনও নির্বাচন নিয়ে বিন্দুমাত্র কোনও কথা হয়নি।