প্রধানমন্ত্রীর বিমানে ত্রুটি; ১০ আসামীর জামিন মঞ্জুর

মামুন খান : প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমানে ত্রুটির ঘটনায় দায়ের করা মামলায় ১০ আসামীর জামিন মঞ্জুর করেছেন আদালত। এরা হলেন- প্রকৌশল কর্মকর্তা এসএম রোকনুজ্জামান, সামীউল হক, লুৎফর রহমান, মিলন চন্দ্র বিশ্বাস, জাকির হোসেন, বিমানের প্রধান প্রকৌশলী (প্রোডাকশন) দেবেশ চৌধুরী, প্রধান প্রকৌশলী (কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স) এসএম সিদ্দিক, প্রধান প্রকৌশলী (মেইনটেন্যান্স অ্যান্ড সিস্টেম কন্ট্রোল) বিল্লাল হোসেন, সিদ্দিকুর রহমান ও মেকানিক শাহআলম।

সোমবার ঢাকার অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম কায়সারুল ইসলাম আসামী বিল্লাল হোসেনের জামিন মঞ্জুর করেন। অপর ৯ আসামীর জামিন মঞ্জুর করেন ঢাকা মহানগর হাকিম সুব্রত ঘোষ শুভ । আর মামলার আরেক আসামি নাজমুল হক পূর্বে হাইকোর্ট থেকে নেন।

এদিকে এদিন ১১ আসামীর অব্যাহতির আবেদনটি ‘দেখলাম’ উল্লেখ করে তাতে স্বাক্ষর করে ঢাকা মহানগর হাকিম আহসান হাবীব পরবর্তী কার্যক্রমের জন্য মামলার নথি ঢাকা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বদলির আদেশ দেন।

এরআগে গত ৬ ডিসেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের পরিদর্শক মাহবুবুল আলম এক প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে তিনি বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩) ধারা ও দন্ডবিধির ১১৮ ও ১২০(খ) ধারা থেকে সকল আসামিকে অব্যাহতির আবেদন করেন। তবে দন্ডবিধির ২৮৭ ধারায় তিন আসামি সিদ্দিকুর রহমান, নাজমুল হক ও শাহ আলমের বিরুদ্ধে প্রসিকিউশন দাখিলের আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা।

উল্লেখ্য, গত বছর ২৭ নভেম্বর হাঙ্গেরি যাওয়ার পথে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারী বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইনসের একটি উড়োজাহাজে (বোয়িং-৭৭৭) যান্ত্রিক ত্রুটি দেখা দেয়। এ কারণে তুর্কমেনিস্তানে জরুরি অবতরণ করে বিমানটি। অন্য একটি উড়োজাহাজ পাঠিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও তার সফরসঙ্গীদের বুদাপেস্টে পৌঁছানোর ব্যবস্থা নেওয়া হলেও পরবর্তী সময়ে ত্রুটি সারিয়ে ওই উড়োজাহাজেই হাঙ্গেরি যান প্রধানমন্ত্রী। এ ঘটনায় দুই দফায় বর্তমান মামলার এই ৯ আসামিকে সাময়িক বহিষ্কার করা হয়। গত বছর ২০ ডিসেম্বর বিমানের পরিচালক (ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট) এমএম আসাদুজ্জামান বিমানবন্দর থানায় এই মামলা দায়ের করেন। দন্ডবিধির ১০৯, ১১৮, ১২০ (খ), ২৮৭ এবং বিশেষ ক্ষমতা আইনের ১৫(৩) ধারায় মামলাটি করা হয়।