প্রয়োজনে আলাদা থাকবো, তবুও বিচ্ছেদ চাই না : অপু বিশ্বাস

জেবি : শুরুতে দিশেহারা, তারপর হতাশা; পরবর্তীতে অস্থিরতা এবং সবশেষে নিরবতা। হ্যাঁ, জেদাজেদি-রেষারেষি, পাল্টা জবাব এমনকি মামলা ও সংবাদ সম্মেলনের চিন্তাও মাথা থেকে ঝেড়ে ফেলেছেন চিত্রতারকা অপু বিশ্বাস। ঘরের কথা নিয়ে দেশজুড়ে এরকম কাদা ছোড়াছুড়ির ঘটনা এবং মিডিয়ার কাছে নিজেদের সংসারের গোপনীয় খুঁটিনাটি বিষয়াদি তুলে ধরে শেষমেশ নিজেদেরই ক্ষতি হচ্ছে বলে মন্তব্য করছেন অপু বিশ্বাস। তাই তো ঝোকের মাথায় নেয়া সব এলোমেলো পরিকল্পনা পরিহার করে ঠা-া মাথায় সুষ্ঠু ও সুন্দর একটা সমাধান চাচ্ছেন অপু বিশ্বাস। অপুর কথাবার্তার মধ্যেও যেন এক ধরনের শিথিলতা এবং শীতলতা বিরাজ করছে। অপু যেন যেকোনো কিছুর বিনিময়েই নিজের সংসারকে জিইয়ে রাখতে চাচ্ছেন।

নিজের কিছু ভুল-ভ্রান্তির কথা স্বীকার করে অনেকটা নির্বিকার ভঙ্গিতে অপু বিশ্বাস জানালেন, আমার অপমান আর শাকিবের অপমান একই কথা। কেউ তো আর আলাদা নই। আর আলাদা থাকার কথা চিন্তাও করতে পারছি না। আমি আমার সবকিছুর বিসর্জন দিয়েও আমার সংসারকে ফিরে পেতে চাই। আমি মানছি, কিছু বিষয়ে আমার ভুল ছিল। তার জন্য আমি অনুতপ্ত। শাকিব যদি আমাকে মেনে নিয়ে আরেকটা বিয়ে করে, সেখানেও আমি আপত্তি তুলবো না। হাসিমুখে সবকিছুই মেনে নেবো। শুধু তাই নয়, দ্বিতীয় বিয়ের ক্ষেত্রে যদি আমাকে লিখিত চুক্তি করতে হয়, তাও করবো। প্রয়োজনে আলাদা থাকবো, তবুও আলাদা হতে চাই না। এক পরিচেয়ে আমার স্বামী এবং সন্তানের শান্ত¡না নিয়ে বাকি জীবন কাটাতে চাই। আর শাকিবকেও একান্ত অনুরোধ করবো, আমার জন্য না হোক- অন্তত সন্তানের ভবিষ্যতের কথা বিবেচনা করে শাকিব যেন নমনীয় হয়।