এমন কোনো দৈন্যদশায় পড়িনি যে আগাম নির্বাচন দিতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

সারোয়ার জাহান : আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, এমন কোনো দৈন্যদশায় পড়িনি যে এখনই আগাম নির্বাচন দিতে হবে। নির্বাচন নিয়ে বিএনপিকে আলোচনার কোনো প্রস্তাব দেয়া হবে না। বিএনপি নির্বাচনে আসবে কি আসবে না তাদের সিদ্ধান্ত। নির্বাচনে জনগণকে পুড়িয়ে মারলে জনগণও কোনো ছাড় দিবে না। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে আওয়ামীলীগকে ক্ষমতায় রাখতে হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৪টায় সদ্য সমাপ্ত কম্বোডিয়া সফর নিয়ে গণভবনে সংবাদ সম্মেলন তিনি একথা বলেন।

এসময় তিনি বহুদলীয় গণতন্ত্রের নামে জিয়াউর রহমান যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতির সুযোগ দিয়েছিলেন বলে প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেন।

বিএনপি চেয়ারপাসন খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ক্ষমা করে দেওয়ার বিষয়ে প্রশ্ন রাখেন সাংবাদিক নেতা মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল।

জবাবে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, উনি কি ক্ষমা করেছেন, না চেয়েছেন-এ ক্ষমার বিষয়টি স্পষ্ট নয়। তার উচিত দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাওয়া। কিবরিয়াসহ অনেককে হত্যা করা হয়েছে। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলায় আমি বেঁচে গিয়েছিলাম, এ জন্য আমাকে ক্ষমা করেছেন?।

তিনি আরও বলেন, খালেদার বিরুদ্ধে যে মামলা তা আমাদের সরকার দেয়নি। বরং আমার বিরুদ্ধে তো এক ডজন মামলা দিয়েছে। আর যারা মামলা দিয়েছে মঈন উদ্দিন, ফখরুদ্দিন তাদের নিজেদের লোক। মামলায় থেকে তার পলায়নপর নীতি আপনারা তা দেখেছেন। কোর্টে যাওয়া নিয়েও তাণ্ডব হয়েছে। এর আগে আওয়ামী লীগের এমপির গাড়ি ভাঙচুর করেছে, আগুন দিয়েছে।

এর আগে আনুষ্ঠানিক ব্রিফিংয়ে কম্বোডিয়া সফরে বেশ কিছু চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে এবং সেখানে একটি সড়ক বঙ্গবন্ধুর নামে করা হয়েছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

উল্লেখ্য, তিনদিনের সরকারি সফর শেষে মঙ্গলবার (০৫ ডিসেম্বর) দেশে ফিরেন শেখ হাসিনা।