সস্ত্রীক মন্দিরে জাহির খান

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারতে একদিকে যেখানে কেরলে ‘লাভ জিহাদ’ মামলা নিয়ে তোলপাড়, সেখানে প্রকৃত অর্থেই প্রেমকে মান্যতা দিচ্ছেন জাহির-সাগরিকা জুটি। বোলার জাহির ভারতীয় দলের অন্যতম অস্ত্র ছিলেন। এখন তাঁর মানবিক ঔদার্য চমকে দিচ্ছে সকলকে।

দীর্ঘদিনের প্রেমের রাস্তা পেরিয়ে সদ্য বিবাহবন্ধনে বাঁধা পড়েছেন জ়াহির-সাগরিকা। জাহির খান ইসলাম ধর্মাবলম্বী অন্যদিকে সাগরিকা ঘাটকে হিন্দু। তাই ধর্মীয় বিয়ের বিতর্কের মধ্যে না গিয়ে আইনি বিয়ে সেরেছেন নব দম্পতি।

এবার স্ত্রী-র ধর্মকে মান্যতা দিয়ে মন্দিরেও আশীর্বাদ নিয়ে এলেন জ়াহির খান। কোলাপুরের বিখ্যাত মহালক্ষ্মী মন্দিরে আশীর্বাদ নিতে যান নব দম্পতি। সেখানে তাঁদের হাতে মন্দির কর্তৃপক্ষের তরফ থেকে দেবীর মূর্তির স্মারকও তুলে দেওয়া হয়। আসলে যদি পরধর্মের প্রতি সম্মান থাকে তাহলেই তিনি নিজের ধর্মকেও একইরকম সম্মান জানানো সম্ভব।

জাহির -সাগরিকার এই উদারতা থেকে যদি আর পাঁচজন সাধারণ মানুষ নিজেদের একটুও আলোকিত করে তাহলে ‘লাভ জিহাদ’ -র আর প্রয়োজন থাকবে না।

২৩ নভেম্বর কোর্ট ম্যারেজ করেন জ়াহির ও সাগরিকা। তারপর সেদিন আত্মীয় ও কাছের বন্ধুদের নিয়ে ছিল ছোট পার্টি। সেই পার্টিতে ছিলেন সচিন-অঞ্জলি, সস্ত্রীক যুবরাজ সিং ও আরও অনেক ক্রিকেটার। ছিলেন বিরাট কোহলিও। এরপর অবশ্য মুম্বইয়ে গ্র্যান্ড রিসেপশন দেন জ়াহির।