পৃথিবী ধ্বংসের থিউরির সঙ্গে এবার চাঁদ-সূর্যও জড়াল!

সালেহ ইউসুফ: পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে বলে যে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল সেগুলো ভুল প্রমাণিত হয়েছে। সেপ্টেম্বর, অক্টোবর ও নভেম্বরে এই ধরনের ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল। প্রতিটি দাবির কোনোরকম ভিত্তি খোঁজে পাওয়া যায়নি। কেননা এ ধরনের ঘটনা ঘটার কোনো আলামতই পাওয়া যায়নি। ম্যাট রোগার্স নামে এক ব্যক্তি এসব ভবিষ্যদ্বাণী করেছিল।
যদিও মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসাকেও এসব ব্যাপারে মনোযোগ দিতে হয়েছিল। যে কারণে সাধারণ মানুষ চাক্ষুষ সাক্ষী হওয়ার চেয়ে এসব গালগল্পে বেশি মেতেছিলেন।
২৩ সেপ্টেম্বর পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাওয়ার ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল। ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল যে অক্টোবরে ‘প্লানেট এক্স’ পৃথিবীতে আঘাত করবে। এই আঘাতে সৃষ্ট ভ’মিকম্পে পৃথিবীর সমাপ্তি ঘটবে।
সম্প্রতি চাঁদ ও সূর্য নিয়েও এমন একটি থিউরি দাঁড় করিয়েছেন ম্যাট রোগার্স। তিনি এর ব্যাখ্যায় দাবি করেন, ‘প্লানেট এক্স’ কে খালি চোখে আড়াল করে রাখতে সূর্য এবং চাঁদকে কে বা কারা ব্যবহার করছে। আকাশে কেমিক্যাল স্প্রে ছিটানো হচ্ছে যাতে ‘প্লানেট এক্স’ খালি চোখে দেখা না যায়। তিনি এ-ও দাবি করছেন যে এ থেকে পরিত্রাণ পেতে নাসা এরই মধ্যে কার্যক্রম শুরু করেছে।
১৫ অক্টোবর অগ্ন্যুৎপাত, বন্যা ও ভ’মিকম্পে পৃথিবী ধ্বংস হতে চলেছে বলেও ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়েছিল। সম্প্রতি ২০ নভেম্বরও পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে বলে ভবিষ্যদ্বাণী করা হয়। ভবিষ্যদ্বাণী অনুযায়ী পৃথিবীর সমাপ্তি ঘটলে পত্রিকায় এ খবর প্রকাশ পেত না। তাই বলা যায় এগুলো ছিল ষড়যন্ত্রমূলক থিউরি। মিরর/ইন্ডিহান্ড্রেড