রাসুল (সা.) -এর হাদিসে হারাম খাবার

মুফতি আবদুল্লাহ তামিম: আল্লাহ তায়ালা বান্দার জন্য পৃথিবীতে রিজিক সৃষ্টি করেছেন। এর মধ্যে হালাল আছে,আছে হারামও। রাসুল (সা.) আমাদেরকে হারাম খাবারের ব্যাপারে সতর্ক করেছেন:-

আবু হুরাইরা (রাঃ) থেকে বর্ণিত নাবী (সা.) বলেন, সকল হিংস্র পশুর গোশত খাওয়া হারাম। (মুসলিম ১৯৩৩) ইবনে আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, রাসুল (সা.) বড় নখবিশিষ্ট পাখির গোশত খাওয়া হারাম (মুসলিম ১৯৯৪) জাবির (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) খাইবার যুদ্ধের সময় গৃহপালিত গাধার গোশত খেতে নিষেধ করেছেন এবং ঘোড়ার গোশত খাওয়ার অনুমতি দিয়েছিলেন। (বুখারী ৪২১৯) ইবনু আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) চারটি জন্তু হত্যা করতে নিষেধ করেছেন, পিপীলিকা, মৌমাছি, হুদহুদ পাখি ও সূরাদ (এক প্রকার শিকারী পাখি)। (আবু দাউদ ৫২৬৭) ইবনু আবী আম্মার (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন; আমি জাবির (রাঃ) কে বললাম, হায়েনা কি হালাল শিকার? তিনি বললেন, হ্যাঁ। আমি বললাম, রাসুল (সা.) কি তা বলেছেন? তিনি বললেন, হ্যাঁ।(আবু দাউদ ২৭৯৯) ইবন উমার (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন, রাসুল (সা.) বলেছেন, শজারু অবশ্য নাপাক বস্তুর মধ্যে একটা। (আবু দাউদ ৩৮০১) ইবনু উমার (রাঃ) থেকে বর্ণিত, তিনি বলেন রাসুল (সা.) নাপাক বস্তু ভক্ষণকারী জন্তুর গোশত খেতে ও তার দুধ পান করতে নিষেধ করেছেন।(আবু দাউদ ৩৭৮৪)

আব্দুর রহমান ইবনু উসমান (রাঃ) থেকে বর্ণিত, কোন চিকিৎসক রাসূলুল্লাহ (সা.) কে ব্যাঙ প্রসঙ্গে জিজ্ঞেস করলেন এটা ঔষধে প্রয়োগ করবেন কি না? তিনি ওটা হত্যা করতে নিষেধ করলেন। (আহমাদ ১৫৩৩০,নাসায়ী ৪৩৫৫, আবূ দাঊদ ৩৮৭১)

ইবনু আব্বাস (রাঃ) থেকে বর্ণিত, নাবী (সা.) বলেন মুসলিমের জন্য (আল্লাহ্‌র) নামই যথেষ্ট, যদি যাবাহ করার সময় আল্লাহর নাম নিতে ভুলে যায় তবে আল্লাহর নাম নেবে (বিসমিল্লাহ বলবে) তারপর খাবে। (আস সুগরা ৪/৪৩)