২০১৮ সালের বিশ্বকাপে ভাঙছে ৬০ বছরের রেকর্ড

সজিব সরকার: বিশ্বকাপ মানেই নিত্য-নতুন ঘটনা-রটনা, আছে রেকর্ড ভাঙার খেলা। কিন্তু এবারের ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে ভাঙতে যাচ্ছে অর্ধ-শতাব্দীরও বেশি রেকর্ড। রাশিয়ায় অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই বিশ্বকাপে ইতালিকে দেখতে পাবে না ফুটবল বিশ্ব। ৪ বারের বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইতালি ১৯৫৮ সালের পর থেকে এই প্রথম বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব থেকে বাদ পড়ল।

বাছাই পর্বের শেষ ম্যাচে মিলানের সানসিরোয় ইতালি মুখোমুখি হয়েছিল সুইডেনের সাথে। বিশ্বকাপের মূল পর্বে খেলার জন্য একাধিক গোলে জয়লাভ করার কোন বিকল্প ছিল না তাদের। প্রথম ২০ মিনিটে তাদের খেলা ছিল ছন্নছাড়া, তবে খেলার পুরো সময় বিবেচনা করলে দেখা যায় অধিকাংশ সময় বল পায়ে রেখেছিল আজ্জুররিরা। মাঠে নিয়ন্ত্রণ রেখে একের পর এক আক্রমণ করেও গোলের দেখা পায়নি দলটি। অপরদিকে, ড্র করেই মূল পর্বে খেলার সুযোগ পাবে ভেবে আক্রমণাত্মক কৌশল অবলম্বন করেনি সুইডিশরা। অবশেষে গোলশূন্য ড্র করে হতাশ হয়ে ফিরতে হয় বুফনদের।

ম্যাচ শেষ হওয়ার পরেই ইতালির খেলোয়ারদের পাশাপাশি স্টেডিয়ামে উপস্থিত দর্শকরা কান্নায় ফেটে পড়ে। পুরো স্টেডিয়ামের চিত্রটাই যেন পাল্টে যায় এ সময়। স্টেডিয়ামের বাইরেও হয়তোবা অনেকে তাদের কান্না ধরে রাখতে পারেনি তাদের পছন্দের দলকে পরবর্তী বিশ্বকাপে দেখতে পাবেনা বলে।

খেলা শেষে ইতালির অধিনায়ক জিয়ানলুইজি বুফন পদত্যাগ ঘোষণা করেন। তিনি বলেন, ‘এটা খুব লজ্জাজনক যে আমার শেষ ম্যাচটি ব্যার্থতার মধ্য দিয়ে শেষ হল, তবে এই ব্যর্থতার দায় সবাইকে নিতে হবে।’ এছাড়া তার জুভেন্টাস সতীর্থ আন্দ্রেয়া বারজাগলি ও রোমা মিডফিল্ডার রোমা ডি রসিও অবসরে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন।

বিশ্বকাপের ইতিহাসে কেবল ১৯৩০ সালে অনুষ্ঠিত হওয়া প্রথম উরুগুয়ে বিশ্বকাপ ও ১৯৫৮ সালের সুইডেন বিশ্বকাপে খেলার সুযোগ হয়নি দলটির। এছাড়া প্রত্যেকটি বিশ্বকাপেই অংশগ্রহণ করে ৪ বার বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল তারা। সর্বপ্রথম ১৯৩৪ সালে চেকোসেøাভাকিয়াকে হারিয়ে এবং সর্বশেষ ২০০৬ সালে জার্মানিতে অনুষ্ঠিতব্য বিশ্বকাপে ফ্রান্সকে হারিয়ে জয়ী হয়েছিল তারা। এছাড়া ১৯৩৮ ও ১৯৮২ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল এ দেশটি।

এবারের বিশ্বকাপে বুফনের মত জনপ্রিয় রোবেনকেও মিস করতে যাচ্ছে ফুটবল প্রেমীরা। কারণ বিশ্বকাপের অন্যতম শক্তিশালী দল নেদারল্যান্ডও এর আগেই এবারের বিশ্বকাপ থেকে বাদ পড়ে গেছে। বিবিসি