‘নির্বাচনকালীন সময়ে সেনা মোতায়েনটা জরুরি’(ভিডিও)

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্তর্জাতিক সর্ম্পক বিষয়ক অধ্যাপক ড. তারেক শামসুর রেহমান বলেন সেনা মোতায়েনের ব্যাপারে নির্বাচন কমিশনার যা বলেছে এটা আমার কাছে জানা নাই। নির্বাচন কমিশনার যে বিষয় সেনা মোতায়েনের ব্যাপারে বলেছে। এটা অতি গুরুত্বপূর্ণ। নির্বাচন কমিশন মিটিংয়ে এই মিলিত হয়ে এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। কিন্তু তেমন কোন মিটিংয়েন কোন তথ্যও আমরা পাইনি। এই বক্তব্য কি নির্বাচন কমিশনার মাহবুব নিজেই দিয়েছেন কিনা। তা আমার কাছে স্বপ্রণোদিত হয়ে করেছে কিনা? প্রশ্ন রয়ে গেল।

মিথিলা ফারজানা’র সঞ্চালনায় একাত্তর টেলিভিশনের নিয়মিত অনুষ্ঠান একাত্তর জার্নালে তিনি একথা বলেন। এছাড়া ছিলেন ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত।

ড. তারেক শামসুর রেহমান বলেন, নির্বাচনে অনেক দেশে ইভিএম মেশিন ব্যবহার হয় না। এর কিছু ত্রুটি আছে বলে। আমার একটা অভিজ্ঞতা আছে। রাজনীতি বিজ্ঞানী হিসেবে আমেরিকার টেস্ট ডিপার্টমেন্টের আমন্ত্রণে আমরা কয়েকজন গিয়েছিলাম। সেখানে নর্থ ক্যারোলিনার একটা নির্বাচন দেখার সুযোগ হয়েছিল। সেখানকর নির্বাচন কমিশনার সাথে ইভিএমের ব্যাপারে কথা হলে। তারাও ইভিএম মেশিন ব্যবহার করছে বলে জানান। কারণ এর কতগুলো ত্রুটিপূর্ণ দিক আছে। ইভিএম যত দিন শত ভাগ নিশ্চিত হওয়া যায়। ততদিন না ব্যবহার করা। কারণ হ্যাক হওয়ার সম্ভবনা আছে। তাই এটা নির্বাচনে ব্যবহার না করার যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আমাদের নির্বাচন কমিশনার আমি মনে ভালো সিদ্ধান্ত নিয়েছে। আর সেনাবাহিনী মোতায়েনের বিষয়টি আমরা দেখেছি অনেকগুলো দল সেনাবাহিনী চাই নির্বাচনের সময়। কিছু রাজনীতিক দলের সাথে সুদ্ধি সমাজের পক্ষ থেকে আমরাও সেনাবাহিন মোতায়েনের জন্য বলেছি। তবে একটা প্রশ্ন আছে? তাদেরকে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়া যাবে কিনা? কারণ যে সেনাবাহিনীরি অফিসার নিয়োগ থাকবে সে আইন সর্ম্পকে অবগত কিনা? তার জানার ব্যাপার আছে। তাই বিচারিক ক্ষমতা দেওয়া যাবে কিনা সেটা ভেবে দেখতে পারেন।