মোবাইলে লেনদেনে বাড়ছে ব্যয়

জুয়াইরিয়া ফৌজিয়া: মোবাইল ব্যাংকিংয়ে গ্রাহকের ব্যয় বাড়বে। কারণ,  বিটিআরসির নতুন প্রস্তাবে ইউএসএস টিকোর ডায়েল করলেই চার্জ দিতে হবে। সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো বলছে, এতে অর্থ লেনদেন, কেনাকাটা, ব্যালেন্সসিট সবক্ষেত্রে গ্রাহকের ব্যয় বাড়বে। তাই প্রস্তাবটি পুনর্বিবেচনার প্রস্তাব দিয়েছে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়। সূত্র- ইন্ডিপেনডেন্ট

দেশে ২০১১ সালে চালু হয় মোবাইল ব্যাংকিং। ক্যাশইন, ক্যাশআউট, রিচার্জসহ ক্রিকেট ম্যাচের টিকিট কেনাও হচ্ছে মোবাইল ব্যাংকিংয়ের মাধ্যমে।

বর্তমানে মোবাইল ব্যাংকিং গ্রাহকের সংখ্যা ৫ কোটিরও বেশি। আর তার মধ্যে বেশিরভাগই বিকাশের। বিকাশে টাকা পাঠাতে গ্রাহকের ১শ’ টাকায় খরচ হয় ১ টাকা ৮৫ পয়সা। নতুন প্রস্তাবে ক্যাশইন কেনাকাটায় রেমিটেন্স গ্রহণ ও ব্যালেন্স চেকসহ অনেক ফ্রি সার্ভিস আর থাকছে না সাথে দিতে হবে চার্জ।

বিকাশের প্রধান কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স অফিসার শেখ মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, জনগণতো তাদের ব্যালেন্স চেক করতে চাইবেই কারণ তাদের কাছে অল্প টাকাটাই অনেক মূল্যবান এবং তারা তাদের ব্যালান্সটাকেএনশিওর (নিশ্চিত) করার জন্য অবশ্যই চেক করবে আর সেজন্য যদি এসব চার্জ এসে যায় তাহলে খরচ অবশ্যই বেড়ে যাবে। নতুন প্রস্তাবে সেশন প্রতি ৯০ সেকেন্ড হিসাবে খরচ ধরা হয়েছে ৮৫ পয়সা।

অ্যামটব মহাসচিব টিআইএম নুরুল কবির বলেন, ‘এই পদ্ধতি গ্রহণ করা হলে মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সফল হওয়ার যে চিন্তা করা হয়েছে তা হবে না। তার জন্য সেশন বেইজ হচ্ছে বেস্ট প্র্যাকটিস।

বিটিআরসি এর চেয়ারম্যান শাহজাহান মাহমুদ বলেন, গ্রাহকের ব্যয় যেন না বাড়ে সেজন্য নতুন প্রস্তাবকে বিবেচনা করতে হবে।

উভয়পক্ষের খরচ নির্ধারণে একটি সংস্থার মাধ্যমে কস্ট মডেলিংয়ের দাবি মোবাইল ব্যাংকিং প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর।

আনিস/