ভারত সরকারের সঙ্গে উলফার শান্তি আলোচনার খবর ভিত্তিহীন : পরেশ বড়ুয়া

মাছুম বিল্লাহ : উত্তর-পূর্ব ভারতের রাজ্য আসামের স্বাধীনতার দাবিতে সশস্ত্র সংগ্রামরত বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠন ইউনাটেড লিবারেশন ফ্রন্ট অব আসামের (উলফা-স্বাধীন) কমান্ডার ইন চিফ পরেশ বড়ুয়া ওরফে পরেশ আসাম বলেছেন, ‘ভারত সরকারের সঙ্গে উলফার শান্তি আলোচনার খবর ভিত্তিহীন। রোমানিয়ার রাজধানী বুখারেস্টে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থা ‘র’ এবং আইবি’র সঙ্গে আমার কোনো প্রতিনিধি গোপান বৈঠক করেননি। এমনকি পরবর্তীতে কম্বডিয়ায় বৈঠকে আমার অংশগ্রহণের কথা উল্লেখ করে যে খবরে ভারত ও বাংলাদেশের সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে তার কোনোই ভিত্তি নেই।’

বৃহস্পতিবার ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম প্রতিদিন টাইম ও অসমীয়া প্রতিদিনের বরাত দিয়ে দৈনিক আমাদের সময় ডটকমে ‘ভারত সরকারের সঙ্গে আলোচনায় সম্মত উলফা নেতা পরেশ বড়ুয়া!’ শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এ প্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার সকালে এ প্রতিনিধিকে ফোনে তিনি ওই সংবাদের প্রতিবাদ জানান।

তিনি বলেন, ‘ভারত সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনা হবে-অথচ আমি বা উলফার শীর্ষ নেতৃত্ব কেউই জানে না। ভারত সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনার প্রশ্নই আসে না। একমাত্র আসামের স্বাধীনতা ইস্যুতে যদি ভারত সরকার আলোচনায় বসতে চায় তাহলে আমরা ভেবে দেখবো।’

পরেশ বড়ুয়া বলেন, ‘আলোচনা যদি হয়, তাহলে আসামের জনগনের মতামত নিয়েই আলোচনা হবে। আর সেটা হতে হবে অবশ্যই স্বাধীনতা ইস্যুতে। ভারত সরকার এখনো আমাদের স্বাধীনতা ইস্যুতে আলোচনার ব্যাপারে আন্তরিকতা দেখায়নি। তারা আন্তরিকতা না দেখালে কেমন করে আলোচনা হবে।’

উল্লেখ্য, ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য আসামের স্বাধীনতার লক্ষ্যে ১৯৭৯ সালে গঠিত হয় উলফা। এরপর দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে সশস্ত্র তৎপরতা চালিয়ে আসছে সংগঠনটি। ২০০৯ সালের শেষ দিকে উলফার চেয়ারম্যান অরবিন্দ রাজখোয়াসহ সংগঠনের শীর্ষ পর্যায়ের প্রায় সব নেতাকে বাংলাদেশ থেকে ধরে ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হয়। এরপর ২০১০ সাল থেকে দিল্লিতে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে উলফার শান্তি আলোচনা চলছে।

গত বছর নভেম্বরে উলফার সাধারন সম্পাদক অনুপ চেটিয়া বাংলাদেশে ১৮ বছর কারাভোগের পর ভারতে ফিরে গিয়ে সরকারের সঙ্গে শান্তি আলোচনায় যোগ দিয়েছেন। তবে উলফা (স্বাধীন) এর কমান্ডার ইন চিফ পরেশ বড়ুয়া এখনো স্বাধীনতার দাবিতে অটল রয়েছেন।