রোহিঙ্গা সংকটে পাশে থাকবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন

নিজস্ব প্রতিবেদক: রোহিঙ্গা সংকটের সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমারের মধ্যে দ্বিপক্ষীয় সংলাপের উপর বেশি জোর দিলেন সফরত ইউরোপীয় ইউনিয়নের মানবিক সহায়তা ও সংকট ব্যবস্থাপনাবিষয়ক কমিশনার ক্রিসতোস্ত স্তিলিয়ানিদেস।

বুধবার রাজধানীতে রাষ্ট্রীয় অতিথি ভবন পদ্মায় পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর সঙ্গে বৈঠক শেষে বিফ্রিংয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেন ক্রিসতোস্ত। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সংকট মোকাবিলায় সব ধরনের সহায়তা অব্যাহত রাখবে ইইউ।

মানবিক সহায়তা এবং সংকট ব্যবস্থাপনা বিষয়ক কমিশনার হিসেবে দায়িত্বরত থাকায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি মনে করা হয় ক্রিসতোস্তকে। বিশেষ করে রোহিঙ্গা ইস্যুতে তাঁর ভূমিকা যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ। তাই কক্সবাজারে রোহিঙ্গাদের অবস্থা কাছে থেকে দেখে সমস্যার সমাধানে তিনি ইইউর হয়ে কী ভূমিকা পালন করবেন সেটা জানার ব্যাপারে আগ্রহী ছিলেন সাংবাদিকরা।

ব্রিফিংয়ে ক্রিসতোস্ত বলেন, ‘রোহিঙ্গা সমস্যার ব্যাপারে আমি রাজনৈতিক সমাধানের উপরই বেশি জোর দেবো। ইউরোপীয় ইউনিয়ন বেশ ভালোভাবেই অবগত আছে রোহিঙ্গা সমস্যার উৎস মিয়ানমারে। আমি মনে করি বাংলাদেশ ও মিয়ানমারকে সংলাপ চালিয়ে যাওয়া উচিত। এই ডায়ালগের ব্যাপারে আমি অনেক কিছু জেনেছি বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে এবং আমি সেটার সাথে একমত পোষণ করি। ’

এখন পর্যন্ত ইউরোপীয় ইউনিয়নই রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারকে দৃশ্যত সবচেয়ে বেশি চাপের মধ্যে রেখেছে। আর সেই সাথে রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় বাংলাদেশের পাশে থাকার ব্যাপারেও উদ্যোগী ভূমিকা রেখেছে ইইউ।

ইইউ কমিশনার বলেন, ‘আমি আশা করি রোহিঙ্গারা তাদের নিজেদের দেশে নিরাপদে এবং সম্মানের সাথে ফিরে যেতে পারবে। আমি প্রতিজ্ঞা করছি ইউরোপীয় ইউনিয়ন রোহিঙ্গা সংকটে সবধরনের সহায়তা দিয়ে যাবে যত দিন এর সমাধান না হচ্ছে।’

রোহিঙ্গা সংকট বর্তমান সময়ে তার দেখা সবচেয়ে জটিল ও অমানবিক বলে মন্তব্য করেন ক্রিসতোস্ত।