সুস্থতার জন্য ডার্ক চকলেট প্রতিদিন

সাঈদা মুনীর (বাংলা ট্রিবিউন): চকলেট খাওয়া স্বাস্থ্যের জন্য খারাপ- আমরা এটাই জানি সবাই। তবে জানেন কি নিয়মিত চকলেট খেলে সুস্থ থাকা যায়? প্রতিদিন ১০০ গ্রাম ডার্ক চকলেট খেতে পারেন সুস্থ থাকতে চাইলে। ডার্ক চকলেটে থাকে প্রচুর পরিমাণে কোকো। এছাড়া এতে অন্যান্য বিভিন্ন প্রয়োজনীয় উপাদান রয়েছে যা অনেক রোগ থেকে দূরে রাখতে পারে আপনাকে। জেনে নিন ডার্ক চকলেটের উপকারিতা সম্পর্কে।

  • সম্প্রতি একটি গবেষণায় দেখা গেছে, কোকোর মাত্রা বেশি থাকে এমন চকলেট খেলে ইনসুলিনের উৎপাদন বেড়ে যায়। ফলে রক্তে শর্করার মাত্রা নিয়ন্ত্রণের বাইরে যাওয়ার সুযোগ পায় না। কোকোতে এমন কিছু উপাদান রয়েছে যা বিটা সেলের কর্মক্ষমতা বাড়ানোর পাশাপাশি ইনসুলের উৎপাদন বাড়াতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে।
  • ১০০ গ্রাম ডার্ক চকেলেটে প্রায় ১১ গ্রাম ফাইবার, দৈনিক চাহিদার ৬৭ শতাংশ আয়রন, ৫৮ শতাংশ ম্যাগনেসিয়াম, ৮৯ শতাংশ কপার এবং প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম, জিঙ্ক এবং সেলেনিয়াম রয়েছে। এসব উপাদান শরীর গঠনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। সেই সঙ্গে ব্রেনের কর্মক্ষমতা বাড়াতেও সাহায্য করে।
  • ডার্ক চকলেটে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট রয়েছে যা শরীরের ভেতরে থাকা ক্ষতিকর পদার্থ দূর করতে সাহায্য করে।
  • চকলেটে ফ্লেভোনল নামক একটি উপাদান রয়েছে যা আর্টারির আবরণে নাইট্রিক অক্সাইড তৈরি করে। এই গ্যাসটি আর্টারির স্ট্রেস কমানোর পাশাপাশি রক্তচাপ কমাতেও বিশেষ ভূমিকা পালন করে। পাশাপাশি শরীরে রক্তের প্রবাহ বাড়াতে ডার্ক চকলেটের রয়েছে বিশেষ ভূমিকা।
  • নিয়মিত ডার্ক চকলেট খাওয়ার অভ্যাস থাকলে রক্তে বাজে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমতে শুরু করে। ফলে হার্টের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। সেই সঙ্গে বিভিন্ন ধরনের হার্টের রোগে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কাও কমে।
  • কোকোতে রয়েছে ক্যাফিন এবং থিয়োব্রোমাইন নামক উপকারী উপাদান। বেশি মাত্রায় কোকো দিয়ে বানানো চকলেট খেলে মস্তিষ্কে অক্সিজেন সমৃদ্ধ রক্তের সরবরাহ বেড়ে যায়। ফলে কগনেটিভ ফাংশনের উন্নতি ঘটার কারণে স্মৃতিশক্তি, মনোযোগ এবং বুদ্ধির বিকাশ ঘটে।