মার্সেলের লাখ টাকার ভাউচারে মহসিনের স্বপ্নপূরণ

আমাদের সময়.কম
প্রকাশের সময় : 13/10/2017 -0:51
আপডেট সময় : 13/10/ 2017-0:51

নিজস্ব প্রতিবেদক : পিতৃহীন ৩০ বছরের এক যুবক মো. মহসিন মিজি। বাড়ি লক্ষীপুর জেলার রায়পুর থানার ৬ নং তেরোয়ায়। পরিবারের আপনজনের মধ্যে রয়েছে বিবাহিত বড় দুই বোন, এক ভাই, মা, স্ত্রী ও ছোট্ট একটি কন্যা শিশু। নিজের ভাগ্য বদলের আশায় বছর তিনেক আগে পাড়ি জমিয়েছিলেন মধ্যপ্রাচ্যের কাতারে। স্বপ্ন ছিল আপনজনদের উপহার পাঠানোর। কিন্তু, বছর খানেকের মধ্যেই খালি হাতে ফিরে আসতে হয় জন্মভূমিতে। পূরণ হয় না তার স্বপ্ন।
গত দুই বছর একই থানার নয়ার হাটে মাঝারি সাইজের চা ও মুদি দোকান দিয়ে কোনমতে চলছে তার সংসার। কিন্তু, তার সেই স্বপ্নের কিছুটা পূরণ হলো মার্সেল ফ্রিজ কিনে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারে। যা দিয়ে বড় বোনের জন্য নিলেন ফ্রিজ, ছোট বোনের জন্য রাইস কুকার ও ব্লেন্ডার, নিজের ঘরের জন ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভিসহ অসংখ্য মার্সেল পণ্য।

বিষয়টি ব্যাখ্যা করে মো. মহসিন মিজি জানান, গতকাল (বুধবার) রায়পুর থানার মেসার্স নূহা ইলেকট্রনিক্স থেকে ১৫ হাজার টাকায় দেশীয় মার্সেল ব্র্যান্ডের একটি ফ্রিজ কিনে এসএমএস এর মাধ্যমে নিবন্ধন করি। এর পরপরই আমার মোবাইলে কোম্পানির কাছ থেকে এক লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচার প্রাপ্তির একটি ম্যাসেজ আসে। যা দেখে আমি খুশিতে আত্মহারা হয়ে যাই। জীবনে এই প্রথম এত বড় পুরস্কার পেলাম। প্রাপ্ত ক্যাশ ভাউচার দিয়ে আমি মার্সেলেরই ১৫ সিএফটির একটি ফ্রিজ, ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভি, ১০টি সিলিং ফ্যান, ৩টি রাইস কুকার, ২টি ব্লেন্ডার, ২টি আয়রন ও একটি স্ট্যাবিলাইজার কিনলাম।

 

তিনি বলেন, অনেক দিনের স্বপ্ন ছিল বড় বোনদের কিছু উপহার দেব। আজ মার্সেল ফ্রিজ কিনে সেই স্বপ্ন পূরণ হলো। ক্যাশ ভাউচার দিয়ে বড় বোনের জন্য একটি ফ্রিজ নিয়েছি। এখন আমার যে কতো আনন্দ লাগছে তা বলে বুঝাতে পারবো না। পাশাপাশি, ছোট বোনের জন্যও একটি রাইস কুকার ও ব্লেন্ডার নিয়েছি। কাছের দুজন বন্ধু ও কয়েকজন আত্মীয়, যাদের বাড়িতে ফ্যান নেই তাদের জন্যও কয়েকটি ফ্যান কিনেছি। কাছের মানুষদের মার্সেলের এসব পণ্য উপহার দিতে পেরে খুব ভালো লাগছে।

মো. মহসিন আরো বলেন, আমার ঘরে এতোদিন কোনো টিভি ছিল না। আমার মা ও স্ত্রী টিভি দেখতে অন্যের ঘরে যেত। মার্সেলের ক্যাশ ভাউচারের দিয়ে এখন আমার ঘরের জন্য ৩২ ইঞ্চি একটি এলইডি টিভি কিনলাম। এখন মা ও বউকে টিভি দেখতে আর অন্যের ঘরে যেত হবে না। মার্সেল ফ্রিজ কিনে যে আমার এতগুলো স্বপ্ন পূরণ হবে তা আমি ভাবতেও পারিনি। এজন্য মার্সেল কোম্পানির কাছে আমি কৃতজ্ঞ।

উল্লেখ্য, অনলাইনে ক্রেতাদের দোরগোড়ায় দ্রুত ও সর্বোত্তম বিক্রয়োত্তর সেবা পৌঁছে দিতে ডিজিটাল রেজিস্ট্রেশন কার্যক্রম চালু করেছে দেশীয় এই ব্র্যান্ড। এ কার্যক্রমে ক্রেতাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণকে উৎসাহিত করতে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার দেয়া হচ্ছে। ১০ হাজার টাকা বা তার অধিক মূল্যের পণ্য কিনে রেজিস্ট্রেশন করলেই মিলছে নিশ্চিত ক্যাশ ভাউচার। মার্সেল সূত্রে জানা গেছে, প্রতিবার প্রোডাক্ট রেজিস্ট্রেশন করে ৩০০ থেকে এক লাখ টাকা পর্যন্ত ক্যাশ ভাউচার পাচ্ছেন গ্রাহক। ৮ অক্টোবর থেকে শুরু হওয়া এই অফার থাকছে চলতি বছরের ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত।
ক্যাপশন ১: লাখ টাকার ক্যাশ ভাউচারে কেনা মার্সেল পণ্য নিয়ে মহসিন (বায়ে)
ক্যাপশন ২: মহসিনের হাতে ক্যাশ ভাউচার তুলে দেয়া হচ্ছে (ডানে)

এক্সক্লুসিভ নিউজ

আগামী নির্বাচনে দুর্নীতিবাজ এমপিরা মনোয়ন পাবেন না : কাদের

জাহিদ হাসান : অজনপ্রিয় ও দুর্নীতিবাজ সংসদ সদস্যরা (এমপি) আগামী... বিস্তারিত

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে জাঁকজমকপূর্ণভাবে দীপাবলি পালিত

ডেস্ক রিপোর্ট : ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ে (ইবি) সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দীপাবলি অনুষ্ঠান... বিস্তারিত

সংলাপে অংশ নিতে সিইসিকে চিঠি দিয়েছে জামায়াত

নিজস্ব প্রতিবেদক : নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে অংশ গ্রহণের সুযোগ দেওয়ার... বিস্তারিত

স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য লন্ডনে যাচ্ছেন রাষ্ট্রপতি

হুমায়ুন কবির খোকন:রাষ্ট্রপতি এম আবদুল হামিদ স্বাস্থ্য পরীক্ষা এবং চোখের... বিস্তারিত

পরিবেশ দূষণে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি ভারতে

ফরিদ আহমেদ: পরিবেশ দূষণে বিশ্বের মধ্যে ভারতের মৃত্যুর হার সবচেয়ে... বিস্তারিত





আজকের আরো সর্বশেষ সংবাদ

Privacy Policy

credit amadershomoy
Chief Editor : Nayeemul Islam Khan, Editor : Nasima Khan Monty
Executive Editor : Rashid Riaz,
Office : 19/3 Bir Uttam Kazi Nuruzzaman Road.
West Panthapath (East side of Square Hospital), Dhaka-1205, Bangladesh.
Phone : 09617175101,9128391 (Advertisement ):01713067929,01712158807
Email : [email protected], [email protected]
Send any Assignment at this address : [email protected]