জামায়াতের হরতালে রাজধানীতে যানজট

নুরুল আমিন হাসান: জামায়াতের ঢিলেঢালা হরতালে রাজধানী জুড়ে তীব্র যানজটে নাকাল রাজধানীবাসী। রাজধানী ঢাকার কোথাও কোন হরতালের প্রভাব দেখা যায়নি। অন্যান্য দিনের মত রাজধানীর সর্বত্রই যান চলাচল স্বাভাবিক ছিল।

জামায়াতের হরতালের মধ্য দিয়েই বৃহস্পতিবার সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত রাজধানীর মতিঝিল, পল্টন, গুলশান বনানী ও উত্তরার এমন চিত্রই দেখা মেলে।

মতিঝিল এলাকার হাবিবুর নামের এক পথচারী আমাদেরসময় ডটকমকে জানান, অন্যান্য দিনের তুলনায় যানজটের কোনো কমতি ছিল না। সর্বত্রই যানজটের তীব্রতা দেখা যায়। যানজটের কারণে ১০ মিনিটের পথ পাড়ি দিতে লেগেছে আধা ঘন্টারও বেশি সময়। একদিকে যানজট অপর দিকে তাপের তীব্রতার কারণে অস্থির অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

পল্টনে কথা হয় ভিকারুনেসা নূন স্কুলের নাজমিন আক্তার নামের এক ছাত্রীর সঙ্গে। তিনি আমাদেরসময় ডটকমকে জানানা, ধারণা ছিল, হরতালে রাস্তাঘাট ফাঁকা থাকবে। কিন্তু তা বাস্তবে ভিন্ন অবস্থা দেখা যায়। প্রাইভেটে যাওয়া ও আসার পথেই তীব্র যানজটে পড়তে হয়।

এদিকে গুলশান-১ ও গুলশান-২ গোলচক্কর এলাকায় ছোট থেকে বড় সব ধরণের গাড়ির কমতি ছিল না। এছাড়াও সড়কজুড়ে দেখা যায়, যাত্রীবাহী বাসের সাথে প্রাইভেটকারও। এসব দেখে হরতালের কোন ছাপও বুঝা যায়নি।

এছাড়াও মিরপুর, বনানী ও উত্তরা এলাকার একই পরিস্থিতি দেখা যায়। প্রতিটি সিগন্যালে যানজটের কারণে দীর্ঘ সময় পার করতে হয়। ছোট, বড়, মাঝারিসহ সব ধরণের যানবাহনের কোন কমতি দেখা যায়নি। এছাড়াও হরতালে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য প্রতিটি পয়েন্টে, চেকপোষ্টে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের বাড়তি নিরাপত্তা দেখা যায়। এছাড়াও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টহল দেখা যায়।

ঢাকার বিভিন্ন স্থানে কর্তব্যরত ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ট্রাফিক পুলিশ সদস্যদের ধারণা ছিল হরতালে মধ্যে অন্যান্য দিনের তুলনায় যানবাহনের পরিমাণ কিছুটা কম থাকবে। আর এতে স্বাচ্ছন্দ্যে মধ্যেই ডিউটি করা যাবে। বাস্তবে তা আর হল না। নিত্যদিনের মত প্রখর রোদে পুড়ে যানজট নিরসণের মধ্য দিয়ে পার করতে হয়েছে সকাল থেকে।

ঢাকা মহানগর উত্তর ট্রাফিক পুলিশের ডিসি (উপ-পুলিশ কমিশনার) প্রবীর কুমার রায় হরতালের প্রভাবের বিষয়ে আমাদেরসময় ডটকমকে জানান, মহাসড়ক জুড়ে যতটুক দেখেছি সব কিছু স্বাভাবিক দেখেছি। মহাসড়ক জুড়ে অন্যান্য দিনের তুলনায় যানবাহনের কোন কমতি ছিল না।

এদিকে উত্তরা বিভাগের ডিসি (উপ-পুলিশ কমিশনার) জয়দেব কুমার ভদ্র হরতাল প্রসঙ্গে আমাদেরসময় ডটকমকে জানান, হরতালের মধ্যে কোথাও কোন অপ্রীতিকর কিছু ঘটেনি। এছাড়াও হরতালের পক্ষে কোথাও কোন লোক দেখা যায়নি। এছাড়াও নাশকতা সৃষ্টিকারী কাউকে গ্রেফতারও করা সম্ভব হয়নি। সব কিছুই আগের মত স্বাভাবিক ছিল।

হরতালের বিষয়ে মতিঝিল জোনের সহকারী পুলিশ কমিশনার (এসি) আরিফুল ইসলাম আমাদেরসময় ডটকমকে জানান, হরতালের মত কোন কিছুই ছিল না। সারা দিন প্রচন্ড গরম আর মহাসড়ক জুড়ে তীব্র যানজট ছিল। দোকান পাট থেকে সকল ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও ছিল অন্যান্য দিনের মত স্বাভাবিক।