প্রধান বিচারপতির ছুটি ইতিহাসের কলঙ্কজনক অধ্যায় : বি. চৌধুরী

রফিক আহমেদ : প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ছুটি নিয়ে সরকার খারাপ কাজ করেছে মন্তব্য করে সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী বলেছেন, প্রধান বিচারপতির ছুটি নিয়ে সরকার যা করেছে তা ইতিহাসে কলঙ্কজনক অধ্যায় হিসেবে লেখা থাকবে।

বৃহস্পতিবার বিকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে গণ সংস্কৃতি দল আয়োজিত গণবৈঠকে তিনি এসব কথা বলেন। রোহিঙ্গা সমস্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, রাষ্ট্রের প্রধান হিসেবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ভারত, চীন ও রাশিয়া এই তিনটি দেশ সফর করতে হবে। তাদেরকে ঐক্যমতে পৌঁছাতে হবে। ঐক্যমতে পৌঁছাতে না পারলে রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান হবে না। তিনি বলেন, রোহিঙ্গা সমস্যার ব্যাপারে যেকোন দল জাতীয় ঐক্যের ডাক দিলে সেই ঐক্যে আমি থাকবো। তবে রাজনৈতিক ঐক্য গড়তে হলে সেখানে আমার কিছু বক্তব্য থাকবে।

প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ক্যান্সার হয়নি। ক্যান্সার হয়েছে রাষ্ট্র ব্যবস্থার এমন মন্তব্য করে জেএসডির সভাপতি আ.স.ম আব্দুর রব বলেন, ধ্বংস করে দেয়া হয়েছে বিচার বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার ক্যান্সার হয়নি। ক্যান্সার হয়েছে রাষ্ট্র ব্যবস্থার। এর মাশুল জাতিকে দিতে হবে।

প্রধান বিচারপতি ছুটি নিয়ে কথা বলতে পারছেন না। কোনদিন শুনলাম না তিনি অসুস্থ। এখন হঠাৎ কথা বলতে পারছেন না। কারণটা কি ?
রোহিঙ্গা ইস্যুতে পররাষ্ট্র নীতিতে চরম ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছে বাংলাদেশ। রোহিঙ্গা ইস্যু জাতীয় সমস্যা। এই সমস্যার সমাধানে জাতীয় ঐক্যের বিকল্প নেই।

গণস্বাস্থ্য নগর হাসপাতাল ট্রাস্টিবোর্ড চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী ভারতকে চিনতে ব্যর্থ হয়েছে। তার বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ভারতকে চিনতে পেরেছিলেন। প্রজ্ঞার দিক দিয়ে প্রধানমন্ত্রী তার বাবাকে ছাড়িয়ে গেলেও ভারত ইস্যুতে তিনি ব্যর্থতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছেন। প্রধানমন্ত্রী জানেন না, ভারত আমাদের দেশকে ধ্বংস করে দেবে। রোহিঙ্গা ইস্যু তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যুতে প্রধানমন্ত্রীর চেয়ে সাধারণ মানুষ মানবতা বেশী দেখিয়েছে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি গণ সংগঠক এস.আল-মামুনের সভাপতিত্বে গণ বৈঠকে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম বীর প্রতীক, জেবেল রহমান গাণি, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সাইফুদ্দিন মনি, মো. মঞ্জুর হোসেন ঈসা, ফরিদ উদ্দিন, মুহম্মদ মাহমুদুল হাসান, কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, শরীফ মোস্তফাজামান লিটু ও নুরুল করিম প্রমুখ।