বিশ্বে স্থুলতায় দ্বিতীয় অবস্থানে ভারতীয় শিশু

রাশিদ রিয়াজ : অর্থনীতি উদার হওয়ার পাশাপাশি যৌথ পরিবার ভেঙ্গে যাওয়া ও বহুজাতিক খাদ্য প্রতিষ্ঠানের ব্যাপ্তি ভারতে শিশুদের মোটা হয়ে যাওয়ার পেছনে বিরাট ভূমিকা রাখছে। এছাড়া অনিয়মিত জীবনযাপন, ভুল পুষ্টির ব্যবহার বিশ্বে ভারতীয় শিশুদের স্থূলতায় দ্বিতীয় অবস্থানে নিয়ে গেছে। এর ফলে স্থূলতাজনিত রোগাক্রান্ত হয়ে পড়ছে দেশটির শিশুরা।

নিউ ইংল্যান্ড জার্নালের এক জরিপ বলছে, চীনের পরই ভারতে রয়েছে ১৪ দশমিক ৪ মিলিয়ন স্থূল শিশু। বিশ্বে ২ মিলিয়ন শিশু ও প্রাপ্ত বয়স্করা অতিরিক্ত ওজন ও এ সংক্রান্ত জটিলতা সহ বিভিন্ন রোগে ভুগছে। যুক্তরাষ্ট্রে সবচেয়ে বেশি মোটা মানুষ রয়েছে এবং এ সংখ্যা ৭৯ দশমিক ৪ মিলিয়ন এবং চীনে রয়েছে ৫৭ দশমিক ৩ মিলিয়ন মোটা মানুষ।

৯০ দশক থেকে ভারতে মানুষের খাদ্যাভাস ও জীবনযাত্রার ধরণ দ্রুত পাল্টাতে থাকে, অভিভাবকরা ব্যস্ত হয়ে পড়েন, শিশুরা ফাস্ট ফুডে অভ্যস্ত হতে থাকে বলে ভারতের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক সমীর দালাবি জানান। যৌথ পরিবারগুলো ভেঙ্গে যাওয়ায় ভারতীয় শিশুদের সঠিক খাদ্যাভাস গড়ে উঠতে পারছে না। অভিভাবকরা কর্মরত থাকায় শিশুরা কাজের লোকের ওপর নির্ভরশীল হয়ে বেড়ে ওঠে এবং ফাস্ট ফুডের দিকে ঝুঁকে পড়ে। হাঁটাচলার অভ্যাস ছাড়া অতিরিক্ত কম্পিউটার ব্যবহার, নিরাপত্তার দিকটি বিবেচনায় ঘর থেকে পারতপক্ষে বের না হওয়ায় ভারতীয় শিশুদের অতিরিক্ত মোটা হয়ে যাওয়ার মূল কারণ। স্পুটনিক ইন্টারন্যাশনাল