রোহিঙ্গাদের জন্য ফখরুলের কবিতা

মাঈন উদ্দিন আরিফ: মিয়ানমার বৌদ্ধ এবং সেনা সদস্যদের হাতে নির্যাতিত রোহিঙ্গাদের নিয়ে লেখা একটি কবিতা পড়ে শোনালেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সোমবার রাজধানীর সেগুন বাগিচায় কচিকাঁচার মেলা মিলনায়তনে জাসাসের উদ্যোগে রোহিঙ্গাদের নিয়ে ‘আলোকচিত্র ও প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী’তে তিনি যে কবিতাটি পড়ে শোনান, তা লিখেছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা পরিষদের অন্যতম সদস্য চলচ্চিত্র নির্মাতা গাজী মাজহারুল আনোয়ার। কবিতাটির নাম “অবাক হয়ে ভাবি”

কবিতাটি

অবাক হয়ে ভাবি। রোহিঙ্গাদের কতটাই ছিলো এমন দাবি। একটি ভিটে, একটি ঘর, একটি সংসার। তীব্র ঝড়ের আঘাতে তা হয়ে গেলো ছারখার।

মানবতা আজ নিপীড়িত, লাঞ্ছিত, বঞ্চিত। একটু মমতা কী কারো ছিল না মনে সঞ্চিত।

মায়ের বুকে কাঁদছে ওই রক্ত ঝরানো শিশু। কোথায় ভগবান, কোথায় নদী, কোথায় বৌদ্ধ যীশু?

ওদের নিয়ে পত্রিকাতে কত হয় লেখা। গালভরা সব বক্তৃতা শুনি, তারপরেও ওরা একা।

সাগরের জলে ভেসে যায় ওই শত শত কত লাশ। পৃথিবী কী মনে রাখবে বিবর্ণ ইতিহাস।

আধপেটা খেয়ে কেটে যায় ওই কত দিন কত রাত। ওদের জন্য আসে না তো আর শান্তির সুপ্রভাত।

গণতন্ত্র, ধনতন্ত্রের বাক্সে হয়েছে বন্দি। রাজনীতি তাই অরাজনীতি সাথে করেছে সন্ধি।

শোন হে মানুষ, তীব্র কন্ঠে করে যাও প্রতিবাদ। গণতন্ত্রের জয় হবেই হবে, এটাই শেষ সংবাদ।

 

কবিতাটি পড়তে গিয়ে আবেগাক্রান্ত হয়ে পড়েন বিএনপি মহাসচিব।