পেশীশক্তি-প্রশাসন-ধর্মের অপব্যবহারমুক্ত নির্বাচন নিশ্চিত করতে হবে : বাম জোট

রফিক আহমেদ : সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার সমন্বয়ে গঠিত বাম জোটের নেতারা বলেছেন- টাকার খেলা, পেশীশক্তি, প্রশাসন ও ধর্মের অপব্যবহারমুক্ত সংখ্যানুপাতিক পদ্ধতিসহ অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন নিশ্চিত করতে হবে। সামরিক শাসনের আমলে নির্বাচনকে প্রহসনে পরিণত করা হয়েছিল। দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনের উপর জনগণের আস্থা নিঃশেষিত হয়ে গিয়েছিল।

বুধবার বিকাল সাড়ে চারটায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নির্বাচন ব্যবস্থার আমূল সংস্কারের দাবিতে সিপিবি-বাসদ ও গণতান্ত্রিক বাম মোর্চা দেশব্যাপী বিক্ষোভ সমাবেশের কেন্দ্রীয় কর্মসূচিতে নেতারা এসব দাবি জানান।

ইউনাইটেড কমিউনিস্ট লীগের সম্পাদকম-লীর সদস্য অধ্যাপক আব্দুস সাত্তারের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আকবর খান, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ-এর কেন্দ্রীয় সদস্য বজলুর রশীদ ফিরোজ, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয় জুনায়েদ সাকি, বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি)’র সাধারণ সম্পাদক মো. শাহ আলম, গণতান্ত্রিক বিপ্লবী পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোশরেফা মিশু, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক দল-বাসদ (মাকর্সবাদী)’র কেন্দ্রীয় নেতা আকম জহিরুল ইসলাম, বাংলাদেশের সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের আহ্বায়ক হামিদুল হক। সভা পরিচালনা করেন বাসদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য জাহেদুল হক মিলু।

বাম জোটের নেতারা বলেন, দেশের জনগণ পাকিস্তান আমল থেকেই বাংলাদেশের মানুষ অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবিতে সংগ্রাম করছে। নিজের ভোট নিজে প্রয়োগ করার পরিস্থিতি নিশ্চিত করার লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশে গত ৪৬ বছরে মানুষের ভোটাধিকারের নিশ্চয়তার বিধান করা সম্ভব হয়নি। স্বৈরাচারী এরশাদ সরকারবিরোধী গণআন্দোলনের জয়ের মধ্য দিয়ে প্রাপ্ত ব্যবস্থায় নির্বাচন করা গেলে ভোটাধিকার প্রয়োগের নিশ্চয়তা এখনও নিশ্চিত হয়নি। লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড মানে আওয়ামী লীগ-বিএনপির জন্য নির্বাচনে সমান সুযোগ নয়। নির্বাচনে ছোট-বড় সকল দলের জন্য সমান সুযোগ নিশ্চিত করা না গেলে তাকে ‘লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড’ বলা যাবে না।

বাম জোটের নেতারা আরও বলেন, বলেন, নির্বাচনে জনগণের ভোটাধিকার প্রয়োগের পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে। স্বাধীন ও আর্থিক ক্ষমতাসম্পন্ন কার্যকরী নির্বাচন কমিশন প্রতিষ্ঠা করতে হবে। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের জন্য নির্বাচনে সন্ত্রাস, পেশীশক্তি, টাকার খেলা, সাম্প্রদায়িকতা, দলীয়করণ ও প্রশাসনিক হস্তক্ষেপ বন্ধ করতে হবে। তিনি রাজনৈতিক দলসমূহের নিবন্ধনের অগণতান্ত্রিক ও অসংবিধানিক পদ্ধতি বাতিলের দাবি জানান।