সিরাজদিখানে ২১টি গরু নিয়ে বিপাকে থানা পুলিশ

সালাহউদ্দিন সালমান, সিরাজদিখান (মুন্সীগঞ্জ) : মুন্সীগঞ্জ সিরাজদিখানে উদ্ধার করা ২১ টি গরুনিয়ে বিপাকে পরেছে সিরাজদিখান থানা পুলিশ।

বুধবার বিকালে সিরাজদিখান থানার অফিসার্স ইনচার্জ ওসি মোঃ আবুল কালাম এ অসহায়ত্বের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ‘গরু নিয়ে মহাবিপাকে আছি ভাই। উদ্ধার করা গরুর খাওয়া ও পাহাড়া নিয়ে থানা পুলিশের কয়েক সদস্যকে ব্যস্ত সময় কাটাতে হচ্ছে। এককথায় হিমশিম খাচ্ছি। এতে থানার স্বাভাবিক কাজে বিঘœ ঘটছে।
উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের চরের গাও গ্রামে অভিযান চালিয়ে তিনটি বাড়ি হতে চুরি হওয়া ২১টি গরু গত মঙ্গলবার উদ্ধার করে সিরাজদিখান থানা পুলিশ।

ঘটনার তিনদিন অতিবাহিত হলেও এখন পর্যন্ত গরুর কোন মালিক থানায় প্রয়োজনীয় কাগজপত্র নিয়ে আসেননি তবে আর দু তিনদিন অপেক্ষা করেও যদি কোন মালিকানার সঠিক খোঁজ না মিলে তাহলে আইনি প্রক্রিয়ায় যথাযথ ব্যবস্থা নেবো।

এ ব্যাপারে সিরাজদিখান থানার ওসি আরও জানান যে হয়তো কোন সিন্ডিকের মাধ্যমে উত্তরাঞ্চলের বিভিন্ন জায়গা থেকে গরুগুলো চুরি করে এনেছে।

পরে বালুচর ইউনিয়নের চরের গাও গ্রামের মালেক , মহিউদ্দিন, তৈয়ব আলী ও মহি উদ্দিন এই চারজনের বাড়িতে জমা রেখেছে নয়তো কমদামে তাদের কাছে বিক্রি করে গেছে। তাদের বাড়ি থেকে গ্রামের লোকজন গরুগুলো উদ্ধারের পর থেকে এই চারজনের বাড়ির লোক পলাতক রয়েছে এদের ধরতে পারলে গরুর বিষয়ে সঠিক তথ্য পাওয়া যাবে।

উল্লেখ্য, গত ১১ সেপ্টে¤র রাতে চরেরগয়ের গ্রামবাসীর সংবাদের ভিক্তিতে ১২ সেপ্টেম্বর সকালে উপজেলার বালুচর ইউনিয়নের চরের গাও গ্রামের মালেক (৫৫) মহিউদ্দিন (৪৮) তৈয়ব আলী (৪৬ )মহিন উদ্দিন (৪২ ) নামের চারজনের বাড়ি থেকে ২১ গরু উদ্ধার করা হয় পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্বৃত্তরা মঙ্গলবার ভোর সকালে গরু ফেলে রেখে ঘড়বাড়ি ছেড়ে পালিয়ে যায়।