অর্ধনগ্ন ছবির জন্য ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন কেট

বাঁধন : ব্রিটিশ সিংহাসনের উত্তরাধিকার প্রিন্স উইলিয়ামের স্ত্রী ডাচেস অব কেমব্রিজ কেট মিডলটনের অর্ধনগ্ন (টপলেস) ছবি প্রকাশ করায় প্রায় ৯৭ লাখ ৫ হাজার টাকা (৯১ হাজার ৭০০ পাউন্ড) ক্ষতিপূরণ দিতে হচ্ছে ফরাসি সাময়িকী ‘ক্লোজার’কে।

আজ মঙ্গলবার ব্রিটিশ অনলাইন ইনডিপেনডেন্টের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ফ্রান্সে প্যারিসের একটি আদালত কেটকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে ৯৭ লাখ ৫ হাজার টাকা দিতে ক্লোজার সাময়িকীকে নির্দেশ দিয়েছেন। একই সঙ্গে ‘ক্লোজার’-এর সম্পাদক ও মালিককে ৪৩ লাখ ৭১ হাজার টাকা (৪১ হাজার ৩০০ পাউন্ড) করে জরিমানা করা হয়েছে।

কেট ও উইলিয়াম তৃতীয় সন্তানের মা-বাবা হতে যাচ্ছেন—গতকাল সোমবার এই ঘোষণার দেওয়ার এক দিন পরই পাঁচ বছর ধরে চলা মামলার রায় ঘোষণা হলো। যাতে মোটা অঙ্কের ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন তাঁরা। এই রাজদম্পতির এক ছেলে ও এক মেয়ে আছে। এই সপ্তাহে চার বছরের প্রিন্স জর্জ স্কুলে যাওয়া শুরু করল। মেয়ে প্রিন্সেস শার্লটের বয়স এখন দুই।

সন্তানদের সঙ্গে প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটন দম্পতি। ছবি: এএফপিপ্রতিবেদনে বলা হয়, ২০১২ সালে স্বামীর সঙ্গে ফ্রান্সে বেড়াতে গিয়েছিলেন কেট। সেখানে অবস্থানকালে এসব ছবি তোলা হয়। ছবিগুলো দূর থেকে তুলতে সক্ষম লেন্স দিয়ে তোলা। এগুলো ঝাপসা হলেও উইলিয়াম ও কেটের অবস্থান পরিষ্কার। ওই বছরের সেপ্টেম্বরে ক্লোজারের চার পৃষ্ঠাজুড়ে এই রাজদম্পতির ছবি ছাপা হয়েছে। এর মধ্যে কয়েকটিতে কেট টপলেস অবস্থায় রয়েছেন। এ ঘটনায় রাজপরিবারের মর্যাদাহানি হওয়ার অভিযোগে প্যারিসের নানতেরে আদালতে প্রায় ১৪ কোটি ৫৬ লাখ ৫৭ হাজার (১৫ লাখ ইউরো) টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে মামলা করেন রাজদম্পতি।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওই ছবিগুলো পরে আয়ারল্যান্ডের ডেইলি স্টার ও ইতালির ‘চি’ সাময়িকীতেও প্রকাশ করা হয়। এ ঘটনায় উইলিয়াম ও কেট রাজপরিবারের গোপনীয়তা লঙ্ঘনের অভিযোগে মামলাটি করেন। ছবিগুলো যাতে আর কেউ প্রকাশ বা ব্যবহার করতে না পারে, এ বিষয়েও নির্দেশনা চান ওই মামলায়। সূত্র : প্রথম আলো