কিম জং উন যুক্তরাষ্ট্রকে শ্রদ্ধা করতে শুরু করেছে: ট্রাম্প

সালেহ ইউসুফ: মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, উত্তর কোরিয়ার সর্বোচ্চ নেতা কিম জং উন যুক্তরাষ্ট্রকে শ্রদ্ধা করতে শুরু করেছে। অ্যারিজোনায় হাজারো সমর্থকের এক র‌্যালিতে এ মন্তব্য করেন ট্রাম্প।

বলেন, ‘কিছু লোক বলেছে যে কিম অনেক শক্ত লোক। তিনি যথেষ্ট শক্ত না। কিন্তু আমি বিশ্বাস করি কিম আমাদেরকে শ্রদ্ধা করতে শুরু করেছে। আমি এ বিষয়টিকে খুবই শ্রদ্ধা করি।’

একইদিন দেশটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন পারমাণবিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা নিয়ে উত্তর কোরিয়ার সাম্প্রতিক নীরবতা নিয়ে খোঁচা দেওয়া মন্তব্য করেন। এরপর দিনই ট্রাম্প উত্তর কোরিয়ার নেতা কিমকে উদ্দেশ্য করে এ মন্তব্য করলেন।

টিলারসন বলেছিলেন, শক্ত নিষেধাজ্ঞা আরোপের জেরে উত্তর কোরিয়ার পারমাণবিক কর্মসূচিতে বাঁধা পড়েছে। আর এ কারণেই দেশটি পারমাণবিক কর্মসূচির কার্যক্রম চালাচ্ছে না। তিনি আরো বলেন, উত্তর কোরিয়া সম্প্রতি নিশ্চিতভাবেই কিছুটা ক্ষান্ত হয়েছে যা আমরা অতীতে দেখেনি। এ জন্য আমি আনন্দিত।

গত মাসে উত্তর কোরিয়া দুইটি আন্তঃমহাদেশীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালায়। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র ও উত্তর কোরিয়ার মধ্যে চরম উত্তেজনা দেখা দেয়। গত মাসের সফল পরীক্ষা চালানো প্রথম ক্ষেপণাস্ত্রটি যুক্তরাষ্ট্রের আলাস্কায় আঘাত হানতে সক্ষম বলে বিশেষজ্ঞরা মন্তব্য প্রকাশ করেন।

এ নিয়ে দুই দেশের উত্তেজনা যখন চরম পর্যায়ে তখন উত্তর কোরিয়া আন্তঃমহাদেশীয় দ্বিতীয় ব্যালাস্টিক ক্ষেপণাস্ত্রের সফল পরীক্ষা চালায়। যুক্তরাষ্ট্রের বিশেষজ্ঞরা এ ক্ষেপণাস্ত্র দেশটির প্রধান প্রধান শহরে আঘাত হানতে পারবে বলে মন্তব্য করেন।

দেশ দুইটির মধ্যে উত্তেজনার পারদ চরম থেকে চরম পর্যায়ে পৌঁছে যায়। যুক্তরাষ্ট্রের নেতারা ক্ষেপণাস্ত্রের এ পরীক্ষাকে দেশটির জন্য চরম হুমকি বলে মন্তব্য করেন। ফের উত্তর কোরিয়ার উপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে জাতিসংঘ।

পরপরই যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক ঘাঁটি গোয়ামে উত্তর কোরিয়া ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালাবে বলে ঘোষণা দেয়। এর তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ট্রাম্প খুব কড়া ভাষায় উত্তর কোরিয়াকে হুঁশিয়ারি দেয়। তারপরও দেশটি নড়েচড়ে বসেনি। পরে অবশ্য গোয়ামে হামলার পরিকল্পনা থেকে বেরিয়ে আসে উত্তর কোরিয়া।

সূত্র: এনডিটিভি