আ. লীগ নেতার বিরুদ্ধে শোক দিবসের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

নরসিংদী প্রতিনিধি: নরসিংদীর বেলাব উপজেলায় জাতীয় শোক দিবসের মিলাদ ও দরিদ্রভোজের ৯ হাজার টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

বেলাবর চর উজিলাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলবুলের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তুলে প্রতিবাদ সভার আয়োজন করেন একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম আলকাছসহ অন্য নেতারা।

শনিবার সন্ধ্যায় চর উজিলাব গ্রামের আয়েশা আক্তার কিন্ডারগার্টেন স্কুল মাঠে এই প্রতিবাদ সভা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন চর উজিলাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল কাশেম আলকাছ।

ইউনিয়ন ছাত্রলীগ নেতা রফিকুল ইসলামসহ একাধিক নেতা অভিযোগ করে বলেন, জাতীয় শোক দিবস পালনের জন্য ঊর্ধ্বতন নেতারা দরিদ্রভোজ ও মিলাদের জন্য সেক্রেটারি বুলবুলকে নগদ ৯ হাজার টাকা দেন। কিন্তু ওই টাকা তিনি ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বা অর্থ সম্পাদককে বুঝিয়ে না দিয়ে নিজে আত্মসাৎ করেন। এমনকি নিজে জাতীয় নেতার শোক দিবসে কোনো রকম মিলাদ বা দরিদ্রভোজের আয়োজন করেননি।

প্রতিবাদ সভায় উপস্থিত ছিলেন বেলাব উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শমসের জামান ভূইয়া রিটন, ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. আক্তারুজ্জামান, সাবেক চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা ছিদ্দিকুর রহমান, বারৈচা বাজার কমিটির সহসভাপতি ছায়েদ আলীসহ অন্যান্যরা।

ওয়ার্ড সভাপতি ও সম্পাদকের বক্তব্য শুনে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শমসের জামান ভূইয়া রিটন চর উজিলাব ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বেলায়েত হোসেন বুলবুলকে এসব অভিযোগের ব্যাখ্যা দিতে বলেন।

বুলুবুল এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, ‘আমার পারিবারিক অসুবিধার কারণে টাকা পৌঁছাতে দেরি হয়। তবে আমি আত্মসাৎ করার জন্য নয়, সাময়িক অসুবিধার জন্য সময়মতো তাঁদের হাতে টাকা পৌঁছাতে পারিনি।’

বুলবুল আরো বলেন, ‘ছাত্র রাজনীতি থেকে আজ আমি আওয়ামী লীগের চর উজিলাব ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। মাত্র ৯ হাজার টাকার জন্য আমি আমার নিজেকে বিসর্জন দিতে পারি না।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকদের নিয়ে বিষয়টি নিষ্পত্তি করার আশ্বাস দেন। পরে উপস্থিত নেতাকর্মীরা সাধারণ সম্পাদকের বহিষ্কারের দাবি জানিয়ে সভাস্থল ত্যাগ করেন।