সিভিল এভিয়েশনের চেয়ারম্যান বদলি

এইচএম দেলোয়ার : বাংলাদেশ সিভিল এভিয়েশনের ( সিএএবি ) চেয়ারম্যান এয়ার ভাইস মার্শাল এহছানুল গনি চৌধুরিকে বদলি করা হয়েছে। আর তার উত্তরসুরি হিসেবে সিএএবিতে কর্মরত সাবেক সদস্য পরিকল্পনা ও পরিচালনা ( মেম্বার অপস) এবং বিমান বাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্ত নাজমুল হাসানকে সিভিল এভিয়েশনের নতুন চেয়ারম্যান হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। গত ১০ আগস্ট বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত এক দাপ্তরিক চিঠিতে প্রধানমন্ত্রী অনুমোদন দিয়েছেন বলে জানা গেছে। এরপর ওই দাপ্তরিক চিঠি জন প্রশাসন মন্ত্রনালয় হয়ে বেসামরিক বিমান চলাচল ও পর্যটন মন্ত্রনালয়ে যাবে। এই প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে দুই সপ্তাহ সময় লাগবে বলে সিএএবির সূত্রে জানা গেছে।

সিভিল এভিয়েশনে এই প্রথম  চেয়ারম্যান হিসেবে বিমান বাহিনী থেকে অবসরপ্রাপ্ত কোন কর্মকর্তাকে নিয়োগ দেয়া হলো। তবে এভিয়েশন বিষয়ে দক্ষ বিমান বাহিনীর সাবেক কর্মকর্তা নাজমুল হাসান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে বহনকারি বিমানের পাইলট হিসেবে বিমান চালাতেন বলে সূত্রে জানা গেছে।

মেম্বার অপস এখনও বহাল :

সিভিল এভিয়েশনে দীর্ঘদিন যাবত কর্মরত বিমান বাহিনীর এয়ার কমডোর মুস্তাফিজুর রহমানকে এখনও সিভিল এভিয়েশন থেকে বদলি করে বিমান বাহিনীতে ফিরিয়ে নেয়া হয়নি। কয়েকবার তার বদলির প্রক্রিয়া শুরু হলেও তা আবার রহস্যজন কারনে থেমে গেছে। তিনি সিভিল এভিয়েশনে জেকে বসেছেন বলে অনেকে মন্তব্য করেন। বিমানবন্দরের একটি টেন্ডারকে কেন্দ্র করে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান একে ট্রেডার্সের  বিরুদ্ধে দুদক ২ কোটি টাকার টেন্ডার দুর্নীতির সাথে সংশ্লিষ্টতায় দুদক দাপ্তরিক চিঠি ইস্যু করে  তলব করা হয়। হাওয়া ভবনের ঘনিষ্ঠ ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম গত মাসে শেষ হয়েছে বলে জানা গেছে।

এবারের টেন্ডারে ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বদলে টেন্ডারে অন্য একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান শাহজালাল বিমানবন্দরের ক্লিনিং কাজ বা পরিষ্কারকরন কাজ পেয়েছে। উক্ত প্রতিষ্ঠানের কর্নধারের সাথে মেম্বার অপসের দহরম-মহরম সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা গেছে। ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠনের কর্মচারিদের বিমানবন্দরে ক্লিনিং কাজের জন্য ‘ডি’ পাসে ( ডিউটি পাস )  প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা সই না করায় মেম্বার অপস  উপ-পরিচালককে দিয়ে ‘ডি’ পাসে সই করিয়েছেন বলে সূত্রে জানা গেছে। এ নিয়ে সিএসও এবং উপ-পরিচালকের মধ্যে প্রকাশ্যে বাকবিতন্ডা হয়েছে বলেও সূত্রে জানা গেছে।