বৈষম্যের অভিযোগে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে এক শিক্ষার্থীর মামলা

তানিয়া আলম তন্বী: অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটির কারণে এক বছর বিলম্বে স্নাতক ডিগ্রি সম্পন্ন করায় এর অধীনে একটি কলেজের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা দায়ের করলো ক্যাথেরিন ডান্স (২৪)।

ক্যাথেরিন দাবি করেন, স্নাতক ডিগ্রি অর্জনে তাকে ১ বছরের দীর্ঘ বিরতি নিতে বাধ্য করা হয়। পরবর্তীতে অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি অধীনস্থ জিসাস কলেজের কর্তৃপক্ষ তার পরীক্ষার জন্য বিশেষ ব্যবস্থা গ্রহণের অনুমতি দেয় নি। এ কারণে সে প্রচন্ড মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। অর্থনৈতিকভাবে মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্থ হয় সে। তার অধিকার আদায়ের মাধ্যমে এর উপযুক্ত বিচার চায় ক্যাথেরিন।

একই সঙ্গে সে আরো জানায়, তাকে ‘এ লেভেল’ এর জন্য একটি ব্যক্তিগত ঘরে ল্যাপটপ নিয়ে বসার অনুমতি দিলেও তার চিকিৎসার জন্য আর্থিক সহায়তা প্রদান করতে অস্বীকৃতি জানায় জিসাস কলেজ।

ক্যাথেরিন উল্লেখ করেন, অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের মানসিক সমস্যা সংক্রান্ত সমস্যাগুলো খুবই তীব্রভাবে প্রভাব ফেলছিল তার উপরে। এ কারণেই তার স্নাতক ডিগ্রি অর্জনে ১ বছর দেরি, মানসিক সমস্যা ও আর্থিক ক্ষতি হয়। সে এটির বিচার চায়; যেন অন্য কারো সঙ্গে এটির পুনরাবৃত্তি না ঘটে।

অপরদিকে, জিসাস কলেজ এই অভিযোগগুলো সম্পূর্ণরূপে অস্বীকার করেছে ও তার জন্য কিছু নির্দিষ্ট শর্ত রেখেছে। ক্যাথেরিন তার স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করতে পারবে, তবে অন্যান্য শির্ক্ষাথীদের মতোই তাকেও সব নিয়ম-কানুন মানতে হবে।

ইতোপূর্বে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আইনি মামলায় জড়িত ২৪ বছর বয়সী সোফি স্পেক্টরকে তার অভিযোগের কারণে বহিষ্কার করে দেওয়া হয়েছিল।

সূত্র: দ্য টেলিগ্রাফ