প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের ১২ ঘন্টা আগে
হজ্ব ক্যাম্পের ডরমেটরি থেকে আবাসিক বাসিন্দাদের উচ্ছেদ!

এইচএম দেলোয়ার : আশকানার হজ্ব ক্যাম্পের তৃতীয় তলার ডরমেটরি পুরোটাই আবাসিক এলাকা হিসেবে দীর্ঘদিন যাবত ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এ নিয়ে ধর্ম সচিবের দৃষ্টি আকর্ষণ সম্বলিত প্রতিবেদন গণমাধ্যমে প্রকাশিত হওয়ার পর গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় প্রধানমন্ত্রীর উদ্বোধনের ১২ঘন্টা আগে হজ্ব ক্যাম্পের ডরমেটির থেকে ২৫ টি পরিবার উচ্ছেদ করা হয়েছে বলে হজ্ব ক্যাম্প সূত্রে জানা যায়। শনিবার সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবারের হজ্ব ক্যাম্প উদ্বোধন করেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, হজ্ব নিয়ে দুর্নীতি ও অব্যবস্থপনার জন্য সহকারি হজ্ব অফিসারসহ দুজনকে প্রত্যাহার করা হলেও আবার তারা তদবির করে আশকোনা হজ্ব ক্যাম্পেই কর্মরত রয়েছেন। এই দুই কর্মকর্তাসহ প্রায় ২৫টি পরিবার সরকারিভাবে হাউজরেন্ট পাবার পরও হজ্ব ক্যাম্পের ডরমেটরিকে আবাসিক এলাকা বানিয়ে গ্যাস, বিদ্যুৎ, পানি ব্যবহার করছে, অপচয় করছে।

সরকারকে বছরে এ বাবদ লাখ টাকার বিল পরিশোধ করতে হচ্ছে। শুধু তাই নয়- হজ্ব ক্যাম্পের ভিতর আবাসিক এলাকা বানানোর ফলে হজ্ব ক্যাম্পের পবিত্রতা নষ্ট হচ্ছে। কোন কোন কর্মকর্তার গুনধর পুত্ররা বখাটে হয়ে হজ্ব ক্যাম্পের ভিতরে নিরিবিলি বসে মাদক সেবন করছে বলেও শোনা গেছে।

সম্প্রতি র‌্যাবের সেনা ব্যারাকে আত্মঘাতি বোমা হামলার ঘটনা ঘটলেও হজ্ব ক্যাম্পের নিরাপত্তার স্বার্থে আবাসিক এলাকা সরানো হয়নি। কোন কোন কর্মকর্তা হজ্ব ক্যাম্পকে বাপ-দাদার সম্পত্তি মনে করছেন। এ নিয়ে পত্রপত্রিকায় খবর প্রকাশের পর কর্তৃপক্ষের টনক নড়ে। ফলে গতকাল সন্ধ্যায় হজ্ব ক্যাম্প ডরমেটরি থেকে আবাসিক বাসিন্দাদের উচ্ছেদ করা হয়।

উল্লেখ্য , হজ্ব ক্যাম্পের আবাসিক এলাকার নিরাপত্তা, পবিত্রতা নিয়ে ধর্ম সচিব, পরিচালক হজ্ব এবং গণপুর্ত বিভাগের নির্বাহি প্রকৌশলীর দৃষ্টি আকর্ষণ করে আমাদের সময়ডটকমে তদন্ত প্রতিবেদনে রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়।