শনিবার ৮ এপ্রিল ২০১৭



দক্ষিণ চীন সাগরে যুদ্ধের দামামা, মুখোমুখি চীন ও তাইওয়ান


আমাদের সময়.কম
Published Time : January 11, 2017-19:56
Last Update Time : January 11th, 2017-19:56

মাছুম বিল্লাহ : দীর্ঘদিন ধরে চলা বিরোধের জেরে এবার যুদ্ধের দিকে এগুচ্ছে চির বৈরী দুই দেশ চীন ও তাইওয়ান। সম্প্রতি তাইওয়ানের জলসীমানায় একটি চীনা ডুকে পড়ায় পাল্টা রণতরী ও যুদ্ধবিমান মোতায়েন করেছে তাইওয়ান। এ পরিস্থিতিতে দুই দেশের মধ্যে যুদ্ধ আসন্ন বলে মনে করছেন সামরিক বিশেষজ্ঞরা। খবর হিন্দি দৈনিক জাগরণের।
তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের সূত্রের বরাতে পত্রিকাটি লিখেছে, দক্ষিণ চীন সাগরে সোভিয়েতে নির্মিত চীনা লিয়াওনিং রণতরী রুটিন মহড়া সেরে ফেরার সময় তাইওয়ানের জলসীমায় ঢুকে পড়ে। শুধু তাই নয়, তাইওয়ানের দক্ষিণ-পূর্বে এয়ার ডিফেন্স আইডেন্টিফিকেশন জোনেও (এডিআইজেড) ঢুকে পড়ে চীনা রণতরী। রাডারে সেই ছবি ধরা পড়ার পর তড়িঘড়ি যুদ্ধজাহাজ, যুদ্ধবিমান ও রণতরী পাঠায় তাইওয়ান। সামরিক সাজ-সরঞ্জাম প্রস্তুত করা হয়েছে।
তাইওয়ানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রনালয়ের মুখপাত্র চেন চুং চি বলেছেন, চীন ও তাইওয়ানের মধ্যে যে সূক্ষ জলসীমা রয়েছে, সেখানে চীনা রণতরী ঢুকে পড়েছে। চীনা যুদ্ধজাহাজের গতিবিধির উপর নজরদারি চালাতেই আমরা রণতরী ও যুদ্ধবিমান পাঠিয়েছি। তিনি বলেন, চীনের সঙ্গে আমরা সব সময় বন্ধুত্বপূর্ন সম্পর্ক কামনা করেছি, এখনও শান্তি বজায় রাখার পক্ষেই আমরা।
জাগরনের খবরে বলা হয়, জন্মলগ্ন থেকেই চীনের সঙ্গে তাইওয়ানের চির বৈরী সম্পর্ক। সম্প্রতি চীনকে অগ্রাহ্য করে পূর্ণ স্বাধীনতা ঘোষণা করে তাইওয়ান। চীন যদিও তাইওয়ানকে স্বাধীন, সার্বভৌম রাষ্ট্র হিসেবে স্বীকৃতি দেয়নি কোনও দিনই। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি দেশ তাইওয়ানের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রেখে চলে। চীনকে হুঁশিয়ারি দিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতা আরও বাড়িয়ে তাদের কাছ থেকে মিসাইল ডিফেন্স সিস্টেম কিনে মহড়ার প্রস্তুতিও শুরু করে তাইওয়ান।