বুধবার ১১ জানুয়ারী ২০১৭



আইনি লড়াইয়ে ভারতীয় ৩ টেলিভিশন চ্যানেল


আমাদের সময়.কম
Published Time : January 11, 2017-17:57
Last Update Time : January 11th, 2017-17:57

সাজ্জাদুল হক : বাংলাদেশে ভারতীয় টেলিভিশন চ্যানেল- স্টার প্লাস, স্টার জলসা ও জি বাংলার সম্প্রচার বন্ধে হাইকোর্টে করা রিটের শুনানিতে পরিবেশক সংস্থাগুলো আইনজীবী নিয়োগ করেছে।
বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি জে বি এম হাসানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চে এ রিটের শুনানি হচ্ছে। শুনানিতে স্টার জলসা ও স্টার প্লাসের পক্ষে লড়বেন আইনজীবী আব্দুল মতিন খসরু। আর জি-বাংলার পক্ষে শুনানি করবেন ব্যারিস্টার শামসুল হাসান।
এর আগে গত ৮, ৯ ও ১০ জানুয়ারি হাইকোর্টে ভারতীয় তিনটি টিভি চ্যানেল বন্ধে জারি করা রুলের শুনানি হয়। তিন দিনের শুনানিতে রিটকারী আইনজীবী মো: একলাস উদ্দিন ভূইয়া আদালতে বলেছেন, ভারতীয় এই চ্যানেলগুলোতে প্রচারিত বিভিন্ন ধারাবাহিক সিরিয়াল বাংলাদেশের সামাজিক ও পারিবারিক মূল্যবোধ ধ্বংস করছে। এর স্বপক্ষে তিনি পত্রিকায় প্রকাশিত বিভিন্ন প্রতিবেদন আদালতে তুলে ধরেছেন।
২০১৪ সালের ১৯ অক্টোবর এক রিট আবেদনের প্রাথমিক শুনানি নিয়ে ভারতীয় এই তিন টিভি চ্যানেল বন্ধে কেন নির্দেশে দেওয়া হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরী ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামালের হাইকোর্ট বেঞ্চ। তথ্য সচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব, বিটিআরসি চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ টেলিভিশনের মহাপরিচালকসহ সংশ্লিষ্টদের রুলের জবাব দিতে বলা হয়েছে। পরে ২০১৪ সালের ৭ আগস্ট সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী সৈয়দা শাহীন আরা লাইলি হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় এই রিট দায়ের করেন।
প্রসঙ্গত, ২০১৪ সালের ২ আগস্ট প্রকাশিত একটি প্রতিবেদন বলা হয়, দেশের ঘরে-ঘরে বাড়ছে ভারতীয় ধারাবাহিক নাটকের জনপ্রিয়তা। এসব সিরিয়াল-প্রীতির কারণে দেশের টেলিভিশন চ্যানেলগুলো ক্রমেই দর্শক হারাচ্ছে। দেশ হারাচ্ছে নিজস্ব সংস্কৃতি। স্টার জলসার ‘বোঝে না সে বোঝে না’ সিরিয়ালের ‘পাখি’র প্রেমে প্রাণ গেল এক যুবক ও মেয়েশিশুর।’ সেই প্রতিবেদন যুক্ত করে জনস্বার্থে ভারতীয় চ্যানেলে বন্ধ চেয়ে রিটটি দায়ের করা হয়। -তথ্যসূত্র : ইনডিপেন্ডেন্ট টিভি, রাইজিং বিডি ও বাংলা ট্রিবিউন