বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সে শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার বেহাল দশা (ভিডিও)

imgres-3আরিফুর রহমান: বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ১২টি সচল উড়োজাহাজের অন্তত ৬টির শীতাতপ নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা বেশিরভাগ সময় অকেজো থাকার অভিযোগ পাওয়া গেছে।
এতে অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক রুটের যাত্রীদের পড়তে হচ্ছে চরম ভোগান্তিতে। এক রুটের উপযোগী উড়োজাহাজ অন্য রুটে চালানো আর উপযুক্ত রক্ষণাবেক্ষণের অভাবে এটা হচ্ছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা।
গত ১৭ জুলাই দুপুরে বাংলাদেশ বিমানের ঢাকা থেকে সিলেট হয়ে লন্ডনগামী বোয়িং ৭৭৭-২০০ উড়োজাহাজের ভিতরের প্রচন্ড গরমে ঘেমে একাকার হচ্ছিলেন যাত্রীরা। শীতাতপ নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা ঠিকভাবে কাজ করছে না এমন আভিযোগ বিমানবালাদের কাছে করেও কোনো সুদুত্তর পাচ্ছিলেন না যাত্রীরা।
গত শনিবার কুয়েত থেকে ঢাকায় আসা বিজি-৪৪ ফ্লাইটের যাত্রীদেরও ছিল একই অভিযোগ।
এক যাত্রী অভিযোগ করে বলেন, ‘কুয়েত থেকে আসছি, বিমানের এসি কোন কাজই করে নাই। ১৫ মিনিট কাজ করার পরে এসি বন্ধ বন্ধ করে দিয়েছে’।
আবারা অভ্যন্তরীণ রুটে বিমানের ড্যাশ-৮ উড়োজাহাজে শীতাতপ নিয়ন্ত্রন ব্যবস্থা অকেজো থাকার অভিযোগ তুললেন কক্সবাজার থেকে ঢাকায় ফেরা যাত্রীরাও।
po-4
বাংলাদেশ বিমান কর্তৃপক্ষও জানালো, সব নয় কিছু উড়োজাহাজের সমস্যা হচ্ছে যান্ত্রিক ক্রুটির কারণে।
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোসাদ্দেক আহমেদ বলেন, ‘বিমানগুলো লিজ নেয়া এবং এগুলো বেশ পুরনো। এগুলো টেকনিক্যাল কিছু সমস্যা আছে। যাত্রীদেরও কিছু অভিযোগ আছে।
এভিয়েশন বিশেষজ্ঞ কাজী ওয়াহেদুল আলম বলেন, ‘এর একমাত্র কারণ হতে পারে মেকানিক্যাল ম্যানেজমেনটা যদি সঠিকভাবে না হয়’।
বাংলাদেশ বিমানের বহরে ১৪টি উড়োজাহাজ থাকলেও এখন উড়ছে ১২টি।
নিজের দেশের উড়োজাহাজে আরামদায়ক ভ্রমণের জন্য বেশিরভাগ মানুষ চড়তে চায় বাংলাদেশ বিমানে। কিন্তু সেই ভ্রমণ এখন হয়ে উঠছে কষ্ট আর যন্ত্রনাদায়ক। ক্রুদের কাছ থেকেও কাঙ্খিত সেবা না পাওয়ার অভিযোগও আছে যাত্রীদের।
সূত্র: ইনডিপেনডেন্ট টিভি.