মুখ দিয়ে লিখে রায়হানের এইচএসসি পাস

HSC-Raihanফরিদুল মোস্তফা খান, কক্সবাজার : বাহার উদ্দিন রায়হান (১৯)। তার দুই হাত না থাকার পরেও থেমে যাননি। হাত না থাকায় মুখ দিয়ে লিখে ২০১৬ সালের এইচএসসি পরীক্ষায় কৃতকার্য হয়েছে। শুধু তাই নয় হাতবিহীন এই যুবক কাজ করছেন মাদকের বিরুদ্ধে। একমাত্র মনের জোর তিনি সকল প্রতিবন্ধকতাকে ডিঙিয়ে সামনের দিতে এগিয়ে যাচ্ছেন।
বাহার চকরিয়া উপজেলার লক্ষ্যাচর এলাকার মৃত বশির উদ্দিনের ছেলে।
বাহার উদ্দিন রায়হানের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, শিশু বয়সে সে দৈহিকভাবে ভ্ালো ছিলো। শ্রেণীতে পড়তেন তখন ২০০৪ সালে ৫ম শ্রেণির ছাত্র ছিলো । ওই বছরের ৩০ অক্টোবর ছিল তার জীবনের সবচেয়ে ভয়ংকর দিন।
ওই দিন বিকাল ৫টার দিকে বৈদ্যুতিক খুঁটির ট্রান্সমিটারে ডুকে যাওয়া ছোট্ট পাখিকে বাঁচাতে বৈদ্যুতিক খুঁটিতে উঠে। তখন বিদ্যুৎ ছিল না। ট্রান্সমিটারের বক্স থেকে পাখিটি মুক্ত করার পরপরই বিকট শব্দে বিস্ফোরিত হয় ট্রান্সমিটার। বিদ্যুৎস্পষ্ট হয় রায়হান। এতে তার ২ হাতই ঝলসে যায়। আর পায়ের তালু পুড়ে যায়।
চিকিৎসকরা প্রথমে তাকে বাঁচানো যাবে না বললেও চট্টগ্রামে দীর্ঘ চিকিৎসার পর রায়হান বেঁচে যান। কিন্তু চিরতরে ফেলে দিতে হয় দুইটি হাত। চিকিৎসার পরেও দীর্ঘদিন তাকে বিছানায় থাকতে হয়।
হাত না থাকলেও তার মনে ছিল প্রচ- জোর। মুখ-আর কুনুইয়ে ভর করে লেখার কাজ আয়ত্ব করে সে।
পরিবারের সহযোগিতায় সে আবার স্কুলে ভর্তি হয়। একে একে জেএসসি, এসএসসি ও সর্বশেষ এইচএসসি পাস করে।