অভ্যূত্থানে জড়িতদের বন্দি করতে অপরাধীদের মুক্তি দিচ্ছে তুরস্ক

turkeyলিহান লিমা: সামরিক অভ্যূত্থানে জড়িত এবং সহায়তার অভিযোগে আটককৃতদের বন্দি করতে ৩৮ হাজার কারাবন্দিকে আগাম মুক্তি দিচ্ছে তুরস্ক। স্থান সংকুলান না হওয়ায় এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে এরদোগান সরকার। বুধবার জরুরি আইনের আওতায় এই সংক্রান্ত দুটি ডিক্রি জারি করা হয়েছে।
হারবার টেলিভিশনকে দেয়া সাক্ষাৎকারে তুরস্কের আইনমন্ত্রী বেকির বোজদাগ বলেন, যেসব বন্দির শাস্তির মেয়াদ দুই বছর বা তারচেয়ে কম তাদের শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি দেয়া হবে। নির্বাচিত ৯৩ হাজার কারাবন্দির মধ্যে প্রাথমিকভাবে ৩৪ হাজার বন্দিকে মুক্তি দিবে সরকার।
তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম জানিয়েছেন, ১৫ জুলাইয়ের ব্যর্থ সেনা অভ্যুত্থানে জড়িত থাকার সন্দেহে এ পর্যন্ত ৪০ হাজারের বেশি ব্যক্তিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এদের মধ্যে ২৩, ৪০০ ব্যক্তি এখনো আটক রয়েছে। ভবিষ্যতে আরো অনেককে গ্রেফতার করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।
তুরস্কের কারাগারগুলোতে দুই লাখ ১৩ হাজার চারশ ৯৯ জন বন্দি রয়েছে। যেখানে ২৬ হাজার বন্দি ধারণক্ষমতার বাহিরে।
১৫ জুলাইয়ের ব্যর্থ সেনা অভূত্থানে ২৪০জন নিহত ও ২ হাজারেরও বেশি আহত হয়। অভ্যূত্থানের পর সরকারি চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়েছে ৭৯ হাজার ৯০০ জনকে। আমেরিকায় স্বেচ্ছা নির্বাসনে থাকা তুরস্কের ধর্মীয়ও বিরোধীদলীয় নেতা ফতেউল্লাহ গুলেনের সঙ্গে সম্পর্ক থাকার কারণে ৪ হাজার ২৬২টি কোম্পানিও প্রতিষ্ঠান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এরদোগান সরকার গুলেনকে এই সেনা অভূত্থানের পরিকল্পনাকারী হিসেবে দোষারপ করে আসছে।
এদিকে ফতেহউল্লাহ গুলেন ওই অভ্যুত্থান প্রচেষ্টার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, বিরোধীদের নিমূর্ল করার জন্য এটি এরদোগানেরই সাজানো নাটক।
সূত্র: রয়টার্স