‘মিতু হত্যায় বেশ কিছু ফোন কল সন্দেহজনক’

Khun-2-550x310নাসিমুজ্জামান সুমন : মাহমুদা আকতার মিতুকে হত্যার আগে দীর্ঘ সময় ধরে ঘটনাস্থলে অবস্থান করার পাশাপাশি নিজেদের মধ্যে একাধিকবার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করেছে। ঘটনাস্থাল ও আশপাশের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে সংগ্রহ করা সিসি টিভির ফুটেজ পর্যালোচনা করে এমন ধারণা পেয়েছে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। তাই এরইমধ্যে বেশ কিছু সন্দেহজনক কল রেকর্ড পর্যালোচনা করা হয়েছে, যা জড়িতদের সনাক্ত করতে সহায়ক হতে পারে বলে মনে করছে পুলিশ।
৫ জুন সকাল ৬টা ৩২ মিনিটে মাহমুদা আকতার মিতু তার ছেলেকে নিয়ে বাসা থেকে বের হয়ে মূল সড়কে আসে। ঠিক একই সময়ে রাস্তার বিপরীত দিক থেকে মোবাইল ফোনে কথা বলতে বলতে সামনের দিকে এগিয়ে যায় চেক শার্ট পড়া একটি যুবক। যখন ওয়েল ফুডের পশে অবস্থান করা মিতুর ওপর কয়েকজন হামলা চালায়, তখন সড়কের অন্যপাশ থেকে আসা যুবকও তাদের সাথে যোগ দেয়। এসব দৃশ্যের ভিত্তিতেই মনে করা হচ্ছে খুনীরা অনেক্ষণ যাবৎ ঘটানাস্থলের অশেপাশেই অবস্থান করছিল। এবং যোগাযোগের জন্য ব্যবহার করেছে মোবাইল ফোন।
কল রেকর্ডের তথ্য অনুযায়ী পুলিশ বলছে, ঘটনার আগে-পরে ঐ এলাকায় প্রায় ২শ’ ফোন কল রয়েছে। এর মধ্যে বেশ কয়েকটি ফোনালাপ অস্বাভাবিক বলে মনে হচ্ছে। ফলে এসব নম্বরকে সন্দেহের তালিকায় রেখেছে পুলিশ।
বিশ্লেষকরা বলছেন, এসব ফোন কলই হতে পারে ঘটনার সূত্র উদঘাটনের জন্য নির্ভরযোগ্য সহায়ক। এ প্রসঙ্গে নিরাপত্তা বিশ্লেষক মেজর (অব:) একেএম এমদাদুল ইসলাম বলেন, ‘হত্যাকা-ের সময়কে নির্দিষ্ট করে মোবাইল রেকর্ড ট্র্যাক করে বছাই করা হলে আমার মানে হয় অনুসন্ধানের একটি নির্দিষ্ট পর্যায়ে আসা সম্ভব।’ তার ধারণা, দীর্ঘদিন ধরে পরিকল্পনার ভিত্তিতে মিতুকে অনুসরণ করা হচ্ছিলো। এছাড়া হঠাৎ করে তাকে চেনার কথা নয়। তাছাড়া খুনের সময় প্রতিরোধের মুখে পড়লে তা ঠেকানোর পর্যাপ্ত ব্যবস্থা ছিল বলে মনে করেন এই বিশ্লেষক।
ঘটনার পর পরই পুলিশ জঙ্গিদের দিকে সন্দেহের আঙ্গুল তোলেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যও অভিন্ন। তবে লক্ষ্যণীয় বিষয় হচ্ছে, দেশের সাম্প্রতিক হত্যাকা-গুলো সংঘটিত হওয়ার পরেই আইএস হত্যার দায় স্বীকার করে। কিন্তু মিতু হত্যা তার ব্যতিক্রম। মিতু হত্যা নিয়ে আইএস’ এর কোন বক্তব্য নেই। তাই এখন জঙ্গিদের পাশাপাশি নানা বিষয়কেই গুরুত্ব দেয়ার কথা বলছে পুলিশ। এ বিষয়ে সিএমপি পুলিশ কমিশানার মো. ইকবাল বাহার বলেন, ‘সব সন্দেহকেই সমান গুরুত্ব দিয়ে আমরা মূল যায়গায় পৌঁছাতে চাচ্ছি।’
এদিকে, পুলিশ নতুন করে আরও কিছু সিসি টিভির ফুটেজ সংগ্রহ করেছে। তাতে হত্যার পর অন্য এলাকায় গিয়ে মাইক্রোবাস ও মোটর সাইকেল আরোহীদের সাক্ষাতসহ বেশি কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য মিলেছে।
সূত্র: চ্যানেল ২৪।