আসছে বাজেটে ৬ স্তর হচ্ছে শুল্ক কাঠামো (ভিডিও)

budjetজাহিদ হাসান : শুল্ক খাতে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে নতুন বাজেটে। বর্তমানের পাঁচস্তরের শুল্ক কাঠামো বেড়ে হচ্ছে ছয় স্তরে। বিদ্যমানের সাথে নতুন যোগ হচ্ছে ১৫ শতাংশ হারের স্তরটি।
আর চার শতাংশের নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্ক এক শতাংশ কমানোর প্রস্তাব করা হচ্ছে নতুন অর্থবছরের বাজেট ঘোষণায়। পাশাপাশি এ সুবিধার আওতাও বাড়ানো হচ্ছে। নতুন নতুন পণ্যের পরিচিতি নম্বর বা এইচ.এস.কোড দিয়ে শুল্ক বসানো হচ্ছে নতুন করে।
অর্থমন্ত্রী আগামী এক বছরের জন্য জাতীয় সংসদে যে বাজেটটি ঘোষণা করবেন, মোটা দাগে তা প্রায় চূড়ান্ত। আগামী ২জুন অনুষ্ঠিতব্যসংসদের অধিবেশনে প্রস্তাবিত বাজেটে তিনি তুলে ধরবেন শূল্ক খাতে বড় ধরনের রতবদলের কথা।
বিশ্বায়ন ও বিশ্ববাণিজ্যের প্রসার ক্রমেই কমছে আমদানি শুল্কের ওপর রাজস্ব নির্ভরতা। ফলে শুল্ক এখন আর রাজস্ব্যের মূল লক্ষ নয়। বরং শুল্ক ফাঁকি, মুদ্রা পাচার রোধ, স্থানীয় শিল্পের বিকাশ ও বাণিজ্যের প্রসারেই আগামীতে শুল্ক খাতের অগ্রাধিকার। তারপরও আসছে অর্থবছরে শুল্ক খাতের রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা বাড়ছে প্রায় ৩৩ শতাংশ।
এজন্য নতুন অর্থবছরে পুরো পুরো শুল্ক কাঠামো ঢেলে সাজানো হচ্ছে। বিদ্যমান ০, ১, ৫ ও ২৫ শতাংশ হারের পাঁচস্তর বিশিষ্ট শুল্কস্তর বাড়িয়ে করা হচ্ছে ছয়স্তর। এরমধ্যে ১৫ শতাংশের হারটিকে নতুন স্তর হিসেবে যোগকরা হচ্ছে।
সরকার মনে করছে এসব সংস্কারের ফলে, রাজস্ব আয়ের পাশাপাশি, স্থানীয় শিল্পের সুরক্ষা হবে, শিল্প ও বিনিয়োগ বান্ধব পরিবেশ তৈরি হবে। তবে উদ্যোক্তারা বলছেন, শুল্কস্তর এমন ভাবে সংস্কার করতে হবে যাতে রাজস্ব আদায় করতে গিয়ে, স্থানীয় শিল্পের ক্ষতি না হয়।
এনবি আরের সাবেক এই চেয়্যারম্যান মনে করেন, রাজস্ব আয়ের পাশাপাশি সুষম শিল্পায়নের জন্যই বাজেটে বিভিন্ন সংস্কার প্রস্তাব দেয়া হয়।
আসছে বাজেটে শুল্কখাতের বিদ্যমান ৪ শতাংশের নিয়ন্ত্রমূলক শুল্ককমিয়ে ৩ শতাংশ করার প্রস্তাব থাকছে। এপরিবর্তনের ফলে নতুন অনেক পন্য ১ শতাংশ কম মুসক দিয়ে আমদানি করতে পারবে।
আর চলতি অথর্বছরে যেসব পন্যে নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্কের অব্যাহতি সুবিধা পাচ্ছে, আসছে অর্থ বছরে তা বহাল রাখা হবে। তাছাড়া নতুন করেও অনেক পন্যকে নিয়ন্ত্রণমূলক শুল্কমুক্ত সুবিধার ঘোষণা থাকবে বাজেটে।Ñচ্যানলে ২৪